আফগানিস্তানের সাথে ম্যাচকে ঘিরে ঢাকায় উত্তেজনা

  • শাহনাজ পারভীন
  • বিবিসি বাংলা, ঢাকা
স্টেডিয়ামের সামনে বাংলাদেশের একজন সমর্থক
ছবির ক্যাপশান,

স্টেডিয়ামের সামনে বাংলাদেশের একজন সমর্থক

আফগানিস্তানের সাথে বাংলাদেশের সিরিজের প্রথম ওয়ানডে ম্যাচটিকে ঘিরে স্টেডিয়ামে দেখা গেছে ব্যাপক উত্তেজনা।

কিন্তু আফগানিস্তানকে ধরা হয় আন্ডারডগ হিসেবে। আফগানিস্তানের সাথে এই খেলা নিয়ে কেন এতো উত্তেজনা?

ঢাকার মিরপুরে শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে গিয়ে দেখা গেলো লম্বা লাইন পার করে মাঠে ঢুকছেন হাজার হাজার দর্শক।

চারপাশে সকাল থেকেই শুরু হয়ে গেছে বাংলাদেশের পতাকা আর চার ছয় লেখা প্ল্যাকার্ড বিক্রি।

আবার বাংলাদেশ দলের প্রতীক বাঘের ডোরা কাটা সারা গায়ে এঁকে অনেকেই এসেছেন।

অর্থাৎ বড় কোন টুর্নামেন্টকে ঘিরে দর্শকদের মধ্যে যে ধরনের উত্তেজনা দেখা যায় তার সবই আজ আছে মিরপুরে শেরেবাংলা জাতিয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

লাইনে দাড়িয়ে থাকা ফারাশিদ বিন এনাম বলছেন, "মেইন ব্যাপারটা হচ্ছে আমরা দশ মাস পরে ক্রিকেট খেলছি। দশ মাসের বিরতির পর আমাদের দল মাঠে নামছে, অনেক দিন পর দেশের মাটিতে খেলা দেখার সুযোগ পাচ্ছি বলেই এত আগ্রহ।"

ছবির ক্যাপশান,

বিক্রি হচ্ছে পতাকা ও চার ছয় লেখা কার্ড

মাঠে আজ বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান হলেও অনেকের কথায় উঠে এলো ইংল্যান্ড দলের নাম।

দর্শকদের একজন মাইকেল গোমেজ মনে করছেন, ইংল্যান্ডের সাথে সামনে অক্টোবর মাসের সিরিজ শুরুর আগে এই সিরিজটি বাংলাদেশ দলের জন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট প্রাকটিসের একটা মোক্ষম সুযোগ।

তিনি বলছেন, "আফগানিস্তান কিন্তু অনেক ভাল দল। বাংলাদেশ ওদের সাথে এখন খেললে বোঝা যাবে খেলোয়াড়রা কেমন করছে। এতে ইংল্যান্ডের সাথে খেলার আগে প্রস্তুতিটা একটু ভাল হবে।"

বোলিং একশনের জন্য নিষিদ্ধ থাকা তাসকিন আহমেদ ফিরেছেন দলে। বাংলাদেশ দলে রয়েছে নতুন বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ। তার জন্যেও এই সিরিজ বাংলাদেশের বোলারদের পারফরম্যান্স দেখার একটা সুযোগ বলছেন মোঃ সাব্বির হোসেন।

তিনি বলছেন, "কোর্টনি ওয়ালশের জন্য ভাল হবে কারণ তিনি দায়িত্ব নেয়ার পর কোন ম্যাচ পাননি। আমাদের নতুন বোলিং কোচ বুঝতে পারবেন আমাদের বোলারদের কোথায় কি সমস্যা। ইংল্যান্ড সিরিজে এটা চমৎকারভাবে কাজে দেবে।"

আফগানিস্তানকে অনেকেই ক্রিকেটের আন্ডারডগ বললেও দলটি এবছর ২৩ টি ম্যাচ খেলেছ তার ১৪ টিতেই জিতেছে। অন্যদিকে প্রায় এগারো মাস আগে বাংলাদেশ সর্বশেষ ওয়ানডে খেলেছে জিম্বাবোয়ের বিপক্ষে। তারপর টি টুয়েন্টি ফরম্যাটের বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ খেললেও এপ্রিলের পর আর কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচই খেলেনি বাংলাদেশ।

ছবির ক্যাপশান,

সকাল থেকেই ভিড় করতে শুরু করে দর্শকরা

সাবেক ক্রিকেটার খালেদ মাসুদ পাইলট বলছেন, এই বিরতি ঘুচিয়ে দলে তাল ফেরাতে সহায়ক হবে আফগানিস্তান সিরিজ।

তিনি বলেছেন, "লম্বা সময় আন্তর্জাতিক পর্যায়ে না খেলে একটা বড় গ্যাপ হয়ে গেছে। যে সব খেলোয়াড়রা জাতীয় দলের জন্য খেলেন তাদের একটা ছন্দের ব্যাপার থাকে। লম্বা সময় না খেললে সেটা থাকে না, আপনি যতোই ডোমেস্টিকে খেলেন না কেন। প্রতিপক্ষ অথবা খেলোয়াড়দের কোয়ালিটি সবকিছু মিলিয়ে আন্তর্জাতিকে খেলার বিষয়টাই আলাদা।"

এই সিরিজ বাংলাদেশের জন্যে গুরুত্বপূর্ণ তার কারণ যাই হোক না কেন ক্রিকেট দর্শকদের উত্তেজনার কোন কমতি নেই।