কমলার খোসা দিয়ে উদ্ভাবনের জন্য পুরস্কৃত দক্ষিণ আফ্রিকার কিশোরী

Kiara Nirghin

ছবির উৎস, Google

ছবির ক্যাপশান,

Kiara Nirghin hopes that the results of her experiment will benefit farmers

মাটি যাতে পানি ধরে রাখতে পারে তার জন্য কমলালেবুর খোসা ব্যবহার করে শোষণে সক্ষম পদার্থ উদ্ভাবন করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার স্কুল ছাত্রী কিয়ারা নিরঘিন। এবং গুগুলের বিজ্ঞান মেলায় এর জন্য পুরস্কার জিতেছেন তিনি।

১৬ বছরের মিস নিরঘিন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শিক্ষার্থীদের হারিয়ে ৫০ হাজার ডলারের এই বৃত্তি পুরস্কার জিতে নিয়েছেন।

দক্ষিণ আফ্রিকায় সাম্প্রতিক খরার পটভূমিতে মিস নিরঘিন তার প্রকল্প তুলে ধরেন "খরা মোকাবেলায় ফল" এই নাম দিয়ে।

১৯৮২ সালের পর সবচেয়ে ভয়াবহ খরার শিকার হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা - খরায় শস্যের ফলন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে- বহু পশুপাখি মারা গেছে।

জোহানেসবার্গের স্কুল ছাত্রী ৪৫ দিন ধরে তিনবার পরীক্ষা চালানোর পর কমলালেবুর খোসার সঠিক মিশ্রণ তৈরি করতে পেরেছেন যা কৃত্রিম পলিমার দিয়ে তৈরি শোষণে-সক্ষম পদার্থের বিকল্প হিসাবে ব্যবহার করা যাবে।

কিয়ারা বলেছেন ফলের রস প্রস্তুতকারক শিল্প থেকে ফেলে দেওয়া বর্জ্য ব্যবহার করে তিনি এই পদার্থটি তৈরি করেছেন।

ছবির উৎস, Thinkstock

ছবির ক্যাপশান,

কিয়ারার পরীক্ষায় দেখা গেছে কমলালেবুর খোসা তরল পদার্থ শোষণ করতে পারে।

"এই পদার্থটি পুরোপুরি জৈব; ফলে পরিবেশের ক্ষতি করে না। সস্তা এবং কৃত্রিম জিনিসের থেকে এর পানি ধারণ ক্ষমতা অনেক বেশি। এই কমলা খোসার মিশ্রণ তৈরি করতে শুধু প্রয়োজন বিদ্যুত এবং সময়। এর জন্য অন্য কোনো উপাদান বা সরঞ্জাম দরকার নেই," বলেছেন মিস নিরঘিন।

ছবির ক্যাপশান,

খরার কারণে দক্ষিণ আফ্রিকায় ভুট্টার ফলন ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

স্কুল ছাত্রী কিয়ারার হাতে তার পুরস্কার অর্থ তুলে দেওয়া হয়েছে ক্যালিফোর্নিয়ায় গুগুলের বার্ষিক মেলায়। কিয়ারা বলেছেন তার আশা কৃষকরা এতে অর্থ এবং তাদের ফসল দুইই বাঁচাতে পারবে।

এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন ১৩ থেকে ১৮ বছর বয়সী স্কুল শিক্ষার্থীরা।