দারুণ জমে উঠেছে চট্টগ্রাম টেস্ট

ইংল্যান্ড বাংলাদেশ টেস্ট

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করছেন বেন স্টোকস

চট্টগ্রামে আজ বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ডের মধ্যেকার প্রথম টেস্টের তৃতীয় দিনের শেষে ইংল্যান্ড তাদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৮ উইকেটে ২২৮ রান করেছে। ফলে চতুর্থ দিনে বাংলাদেশ যদি ইংল্যান্ডকে আর অল্প কিছু রানের মধ্যে অলআউট করতে পারে, তাহলে তাদের সামনে জয়ের লক্ষ্য হতে পারে তিনশ রানেরও কম - যা সহজ নয়, আবার অসম্ভবও নয়।

তৃতীয় দিনের খেলা ছিল ঘটনাবহুল, ভাগ্যের কাঁটা একবার বাংলাদেশের দিকে, আরেকবার ইংল্যান্ডের দিকে - সারা দিন ধরেই চলেছে এমন অবস্থা ।

বাংলাদেশ আগের দিনের ৫ উইকেটে ২২১ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করেছিল । কিন্তু দিনের খেলা শুরু হতে না হতেই সাকিব আল হাসান - মইন আলির একটি বল বাইরে বেরিয়ে এসে মারতে গিয়ে স্টাম্পড হয়ে বিদায় নেন।

এর পর মাত্র ১১ ওভারের মধ্যে বাংলাদেশের শেষ চারটি উইকেট পড়ে যায়, তারা অলআউট হয় ২৪৮ রানে।

এর পর ৪৫ রানে এগিয়ে থাকা ইংল্যান্ড দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামলে প্রথম ইনিংসের মতোই বাংলাদেশের স্পিন আক্রমণ মোকাবিলা করতে নাজেহাল হয়।

অধিনায়ক এলিস্টেয়ার কুক আউট হন দলীয় ২৬ রানের মাথায়, মেহেদি হাসান মিরাজের বলে - যিনি প্রথম দিনে পাঁচ উইকেট নিয়েছিলেন। এর পর আর মাত্র ৩৪ রানের মধ্যে একে একে বেন ডাকেট, জো রুট, গ্যারি ব্যালান্স এবং মইন আলি বিদায় নেন।

ইংল্যান্ডের রান তখন ৫ উইকেটে ৬২ রান।

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

জনি বেয়ারস্টো

কিন্তু এর পর ইংলিশ অলরাউন্ডার বেন স্টোকস এবং উইকেটকিপার জনি বেয়ারস্টোর ১২৭ রানের জুটি পরিস্থিতি অনেকটা সামাল দেয়। ১৮৯ রানে সেই জুটি ভাঙলেও শেষের দিকের ব্যাটসম্যানরা আরো কিছু রান যোগ করেছেন।

বেন স্টোকস করেন ১৫১ বলে ৮৫, আর বেয়ারস্টো করেন ৪৭ রান। বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান ৭৯ রানে ৫টি উইকেট নেন।

দিন শেষে ইংল্যান্ড বাংলাদেশের চাইতে ২৭৩ রানে এগিয়ে ছিল, হাতে আছে আরো দুটি উইকেট।

এই লিডকে যদি তারা তিনশ'র ওপরে নিয়ে যেতে পারে - তাহলে বাংলাদেশের জন্য চতুর্থ ইনিংসে কাজটা কঠিন হয়ে উঠতে পারে। কিন্তু সেটা সহজও হয়ে যেতে পারে যদি বাংলাদেশের প্রথম সারির ব্যাটসম্যানরা চাপ সামলে রান তুলতে পারেন।

সেক্ষেত্রে বাংলাদেশ পেতে পারে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট ম্যাচে এক ঐতিহাসিক জয়।

ফলে ইতিমধ্যেই তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হয়ে ওঠা এই টেস্ট ম্যাচটি শেষ দু'দিনে হতে পারে আরো উপভোগ্য।