নাচের আনন্দ ভাগ করতে গিয়ে অনলাইনে সম্মানহানি

২০০৯ সালে ঘাদির আহমেদ মিশরে বন্ধুদের সঙ্গে তার নাচের একটি ভিডিও রেকর্ড করেছিলেন।

ঘাদির ভিডিওটি পাঠিয়েছিলেন তার প্রেমিককে কিন্তু তাদের ছাড়াছাড়ি হয়ে যাবার পর ঘাদিরকে হেয় করতে তার প্রেমিক ভিডিওটি অনলাইনে ছেড়ে দেয়।

কিন্তু ঘাদির পুলিশের কাছে গিয়ে ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেন।

মিশরে তরুণীদের অধিকার নিয়ে কথা বলার জন্য একটি দল গঠন করেন ঘাদির আহমেদ।

ঘাদিরের মতে, নারীর সম্মানহানির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ গড়ে তুলতে কাউকে না কাউকে এগিয়ে আসতে হবে।