কেনিয়ায় পরীক্ষায় নকল ঠেকাতে ক্লিপবোর্ড নিষিদ্ধ

কেনিয়া
ছবির ক্যাপশান,

ক্লিপবোর্ড নিয়ে পরীক্ষা দিতে যাওয়া যাবে না কেনিয়ায়

কেনিয়ায় পরীক্ষায় নকল ঠেকাতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় নতুন নিয়ম করেছে যে স্কুলের ছেলেমেয়েরা পরীক্ষার হলে ক্লিপবোর্ড বা জ্যামিতি বাক্স নিয়ে ঢুকতে পারবে না।

পরীক্ষার হলের কাছে মোবাইল ফোন ব্যবহারও নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আগামি সপ্তাহে দেশটিতে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্কুলের পরীক্ষায় বসবে প্রায় ১৫ লাখ ছাত্রছাত্রী।

কর্তৃপক্ষ বলছে, পরীক্ষার্থীরা ক্লিপবোর্ডে সম্ভাব্য প্রশ্নের উত্তর লিখে রাখে বলেই এর ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তাছাড়া এ বার জ্যামিতি বাক্সের যন্ত্রপাতিও নিয়ে যেতে হবে স্বচ্ছ ব্যাগে, জানাচ্ছেন বিবিসির সংবাদদাতা।

ছবির ক্যাপশান,

নকলে বাধা পেয়ে ক্রুদ্ধ ছাত্ররা এই স্কুলটি পুড়িয়ে দেয়

সম্প্রতি মাধ্যমিক পরীক্ষায় নকলের ঘটনা ৭০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়ে যাওয়ার পর প্রায় ৫ হাজার ছাত্রের ফল বাতিল করা হয়, শিক্ষক ও পুলিশসক অনেককে গ্রেফতার করা হয়।

পরীক্ষায় নকলের ঠেকাতে কড়াকড়িতে ক্ষুব্ধ ছাত্ররা জুলাই মাসে ১০০টিরও বেশি স্কুলে আগুন লাগিয়ে দেয়।

শিক্ষামন্ত্রী ফ্রেড মাতিয়াংগি বলেছেন, দেশে নকলের একটি চক্র গড়ে উঠেছে যার মধ্যে শিক্ষকরাও আছেন।

ছবির ক্যাপশান,

কেনিয়ার একটি স্কুল

নকলের ব্যাপক বিস্তার ঠেকাতে কেনিয়ার সরকার বেশ কিছু ব্যবস্থা নিয়েছে।

যার মধ্যে বিভিন্ন জায়গায় সশস্ত্র পুলিশ প্রহরায় প্রশ্নপত্র মজুত রাখা, এবং নকলের জন্য স্কুলের প্রধান শিক্ষককে দায়বদ্ধ করার মতো পদক্ষেপও আছে।

এ ছাড়া বেশ কিছু পরীক্ষা বোর্ড ভেঙে দেয়া হয়েছে, কিছু সিনিয়র কর্মকর্তাকে বরখাস্তও করা হয়েছে।