দিল্লিতে ‘দিওয়ালি’ উৎসবে দূষণের মাত্রার রেকর্ড

দিল্লির রাস্তা ধোঁয়াশাচ্ছন্ন
ছবির ক্যাপশান,

দিওয়ালির পরদিন সকালে দিল্লির রাস্তার পরিস্থিতি

ভারতের রাজধানী দিল্লিতে 'দিওয়ালি' বা 'দীপাবলী' উৎসবের একদিন পর সেখানকার ধোয়াশাচ্ছন্ন পরিবেশের ছবি স্থানীয় বাসিন্দারা শেয়ার করছে এবং নিজেদের ক্ষোভ প্রকাশ করছে।

অথচ আগের দিনই সেখানে দিওয়ালি উৎসবের আনন্দে হাজার হাজার আতশবাজি ফুটানো হয়েছে।

দিওয়ালি উৎসবের অন্যতম অংশ হলো বাসাবাড়িতে আলো প্রজ্বলন ও আতশবাজি পোড়ানো। কিন্তু এই আতবাজি পোড়ানোর জন্য বাতাস অনেক বেশি দূষিত হয়ে যায়।

আর এই বছর দিওয়ালি উৎসবে বাতাসে দূষণের মাত্রা রেকর্ড ছাড়িয়েছে।

বাতাসে ধুলিকণার মাত্রার নিরাপদ সীমা ধরা হয় প্রতি কিউবেক মিটারে ১০০ মাইক্রোগ্রাম, কিন্তু এবার দিল্লিতে ধুলিকণার মাত্রা প্রতি কিউবেক মিটারে ৯৯৯ মাইক্রোগ্রাম পর্যন্ত পৌঁছেছে যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর।

দিল্লির স্থানীয় সরকার গত সপ্তাহে এক ঘোষণায় জানিয়েছিল দূষণের মাত্রা কমানোর জন্য তারা বিশুদ্ধ করার ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

যদিও সেটি হয়েছে বলে দৃশ্যত মনে হচ্ছে না।

সোমবার সকালে দিল্লির বিভিন্ন এলাকার যেসব ছবি টুইটারে পোস্ট করেছেন সেখানকার বাসিন্দারা তাতে দেখা যাচ্ছে এক ধরনের ধোঁয়াশায় পুরো শহর আচ্ছন্ন।

অনেকে ছবি পোস্টের সাথে নিজেদের ক্ষোভও ঝেড়েছেন।

আরও পড়ুন:

ছবির ক্যাপশান,

টুইটার ইন্ডিয়ায় হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে ধোঁয়াশায় আচ্ছন্ন বিভিন্ন ছবি পোস্ট করা হচ্ছে

ছবির ক্যাপশান,

সোমবার সকালে ধোঁয়াশার কারণে দিল্লির রাস্তায় গাড়ি আস্তে চলছিল

তারুণ কুমার নামে একজন তার এলাকা সরাই খেইল খানের ছবি পোস্ট দিয়ে বলেছেন সেখানে কিছুই দেখা যাচ্ছে না।

মিনাক্ষী কান্ডাওয়াল লিখেছেন, "দিওয়ালির পরদিনের সকাল-আনন্দ বিহার থেকে নয়ডা যাবার পথে ধোঁয়াশায় ঢাকা রাস্তা"।

শেখ হারুন নামে একজন তাঁর পোস্টে লিখেছেন "সম্ভবত আমরা ভারতীয়রাই একমাত্র জাতি যারা এরকম পরিবেশ তৈরির জন্য টাকা দেই আর প্রার্থনা করি। ছবি দেখে মনে হচ্ছে রাত, অথচ এখন দিনের উজ্জ্বল আলো থাকার কথা"।

ছবির ক্যাপশান,

মিনাক্ষী কান্ডাওয়ালের টুইট "দিওয়ালির পরদিনের সকাল-আনন্দ বিহার থেকে নয়ডা যাবার পথে ধোঁয়াশায় ঢাকা রাস্তা"।

ছবির ক্যাপশান,

দিওয়ালিতে সবসময় আতশবাজি পোড়ানো হয় তবে এটি বাতাসে দূষণ তৈরি করে।