ধর্ম অবমাননা: জাকার্তার গভর্নরের শাস্তি চেয়ে বিক্ষোভ

জাকার্তার গভর্ণরের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ

ছবির উৎস, AFP

ছবির ক্যাপশান,

কট্টরপন্থী ইসলামী দলগুলো এই বিক্ষোভের ডাক দেয়

ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তার গভর্নরের বিরুদ্ধে ধর্ম অবমানানার অভিযোগ এনে হাজার হাজার মুসলিম আজ সেখানে বিক্ষোভ করেছে।

গভর্নর বাসুকি চাহাইয়া এহক পুরনামা জাতিগতভাবে চীনা খ্রীষ্টান। তাঁর বিরুদ্ধে কোরআন অবমাননার অভিযোগ আনা হয়েছে।

তবে গভর্নর এহক বলেছেন, ভোটারদের বিভ্রান্ত করার জন্য তাঁর রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ কোরানের একটি আয়াতকে ব্যবহার করছে।

মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ ইন্দোনেশিয়ায় বাসুকি চা্হাইয়া এহক পুরনামা হচ্ছেন জাকার্তার প্রথম চীনা বংশোদ্ভুত গভর্নর।

তাঁর বিরুদ্ধে বিক্ষোভে অংশ নিতে হাজার হাজার বিক্ষোভকারী জাকার্তার ইসতিকলাল মসজিদ থেকে মিছিল করে প্রেসিডেন্টের প্রাসাদ পর্যন্ত যায়।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইন্দোনেশিয়ায় জাতিগত এবং ধর্মীয় উত্তেজনা বাড়তে পারে বলে আশংকা করছে কর্তৃপক্ষ। জাকার্তায় নিরাপত্তা বাহিনীকে সতর্কাবস্থায় রাখা হয়েছে।

প্রায় ৫০ হাজার মানুষ বিক্ষোভে অংশ নেয়। তাদের বিক্ষোভের ফলে জাকার্তার কেন্দ্রস্থল কার্যত বন্ধ হয়ে যায়।

ছবির উৎস, AFP

ছবির ক্যাপশান,

বাসুকি চা্হাইয়া এহক পুরনামা হচ্ছেন জাকার্তার প্রথম চীনা বংশোদ্ভূত গভর্নর

পরিস্থিতি মোকাবেলায় জাকার্তায় মোতায়েন করা হয়েছে ২০ হাজার পুলিশ।

ইন্দোনেশিয়ার জাতিগত চীনারা মোট জনসংখ্যার মাত্র এক শতাংশ। ১৯৯৮ সালে এক দাঙ্গার সময় তাদের মালিকানাধীন দোকান-পাট এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা করা হয়।

গভর্ণরের বিরুদ্ধে ক্ষোভ কেন

মিস্টার পুরনামা, যিনি আহক নামে বেশি পরিচিত, দ্বিতীয়বার গভর্নর হওয়ার জন্য সামনের বছরের ফেব্রুয়ারী মাসের নির্বাচনে দাঁড়ানোর পরিকল্পনা করছেন।

ছবির উৎস, AFP

ছবির ক্যাপশান,

বিক্ষোভ দমনে মোতায়েন করা হয়েছে হাজার হাজার পুলিশ

কিন্তু কিছু কট্টর ইসলামপন্থী গোষ্ঠী তাকে ভোট না দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে। তারা কোরআনের একটি আয়াত উদ্ধৃত করে এর এমন ব্যাখ্যা দিয়েছে যে, একজন অমুসলিমের অধীনে মুসলিমরা থাকতে পারে না। কিন্তু অন্য অনেক ইসলামী পন্ডিত এই ব্যাখ্যার বিরোধিতা করে বলেছেন, এই আয়াতটিকে দেখতে হবে কোন যুদ্ধকালীন সময়ের পটভূমিতে এবং এটিকে আক্ষরিক অর্থে নেয়া ঠিক হবে না।

গত ২৮ শে সেপ্টেম্বর মিস্টার পুরনামা বলেন, যারা তার বিরুদ্ধে কোরানের এই আয়াতটি ব্যবহার করছেন তারা আসলে মিথ্যে বলে জনগণকে বিভ্রান্ত করছেন।

কিন্ত তাঁর এই মন্তব্য ইন্দোনেশিয়ার কট্টরপন্থী মুসলিমদের ক্ষুব্ধ করেছে।

এ ঘটনার পর মিস্টার পুরনামার বিরুদ্ধে কোরান অবমাননার অভিযোগ আনা হয়। তিনি ইতোমধ্যে তাঁর মন্তব্যের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

কিন্তু মিস্টার পুরনামার বিরুদ্ধে এরই মধ্যে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে এবং পুলিশ সেই অভিযোগের তদন্ত শুরু করেছে।