ট্রাম্পের জয়ের জন্য ফেসবুক দায়ী নয়: জাকারবার্গ

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption মার্ক জাকারবার্গ: ট্রাম্পের জয়ে ফেসবুকের অবদান নেই

ফেসবুকের ভুয়া খবর ডোনাল্ড ট্রাম্পকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ী হতে সাহায্য করেছে বলে যে অভিযোগ উঠেছে, ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ তা নাকচ করে দিয়েছেন।

ক্যালিফোর্নিয়ায় প্রযুক্তি বিষয়ক এক সম্মেলনে তিনি বলেছেন, ট্রাম্পের জয়ের জন্য ফেসবুক দায়ী নয়।

"ফেসবুকে ভুয়া খবর মার্কিন নির্বাচনকে প্রভাবিত করেছে বলে যে কথা বলা হচ্ছে, তা আসলে পাগলামি ছাড়া আর কিছু নয়।"

মার্ক জাকারবার্গ বলেন, কেউ যদি এই তত্ত্ব বিশ্বাস করেন, তাহলে বলতে হবে ট্রাম্প সমর্থকরা যে বার্তা দেয়ার চেষ্টা করেছে, সেটা তিনি উপলব্ধি করতে পারেননি।

কয়েকটি সমীক্ষায় বলা হচ্ছে, ট্রাম্প সমর্থকরা যেভাবে ভুয়া খবর ফেসবুকে শেয়ার করেছিল, পরবর্তীতে সেসব খবর যে ভুয়া, সেই ফলো-আপ পোষ্টগুলো তারা সেভাবে শেয়ার করেনি।

Image caption ডোনাল্ড ট্রাম্পের জয়ের পর হতভম্ব সারা বিশ্ব

যুক্তরাষ্ট্রে বহু মানুষ এখন তাদের খবরের প্রাথমিক উৎস হিসেবে ফেসবুকের ওপরই বেশি নির্ভর করে।

আরও পড়ুন: ট্রাম্প ওবামা বৈঠকের ছবি: দুজনের অঙ্গভঙ্গী কী বলছে

ভিডিওতে দেখুন : ফেসবুকে নাজেহাল কিশোরী বয়সে ধর্ষিতা পূর্ণিমার কাহিনি

ফেসবুকের নিউজফীড এমনভাবে ডিজাইন করা, কোন একজন ব্যবহারকারী সেসব পোস্টই বেশি দেখতে পাবেন, যেগুলোতে তার আগ্রহ বেশি।

সমালোচকরা বলছেন, এর ফলে এমন একটা অবস্থার তৈরি হচ্ছে, যেখানে কেবল একজনের পছন্দের খবরগুলোই তার কাছে পৌঁছাচ্ছে, যা তার রাজনৈতিক মত বা বিশ্বাসকেই আরও দৃঢ় করছে।

তবে এ বছরের শুরুতে নির্বাচনী প্রচারের সময় ফেসবুকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল তারা 'ট্রাম্প বিরোধী'।

তবে ফেসবুক তখনও সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছিল। যদিও এই অভিযোগ উঠার পর ফেসবুক তাদের একটি টিমকে বরখাস্ত করে, যাদের দায়িত্ব ছিল সবচেয়ে আকর্ষণীয় খবর কি হতে পারে সেগুলো বাছাই করা। এরপর এই কাজের জন্য ফেসবুক পুরোপুরি অ্যালগরিদম বা গাণিতিক হিসেবের ওপর নির্ভর করতে শুরু করে।

সমালোচকরা বলছেন, এরপর থেকেই সম্পূর্ণ ভুয়া খবরগুলো বেশি করে লোকের ফেসবুক টাইমলাইনে যেতে শুরু করে।

চিঠিপত্র: সম্পাদকের উত্তর