এন্ডি মারে কতদিন থাকবেন টেনিসের এক নম্বর?

সম্প্রতি টেনিসের র‍্যাংকিংএ বিশ্বের এক নম্বর হয়েছেন ব্রিটেনের এন্ডি মারে।

এ পর্যন্ত এন্ডি মারে তিনটি গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা জিতেছেন। জিতেছেন দুটি অলিম্পিক স্বর্ণপদক। এবছর তিনি দ্বিতীয় বারের মতো উইম্বলডন জিতেছেন।

টেনিসে ১৯৭৩ সালে কম্পিউটারাইজড র‍্যাংকিং চালু হবার পর মারে হচ্ছেন প্রথম ব্রিটিশ খেলোয়াড় - যিনি টেনিসে বিশ্বের এক নম্বর হলেন।

এর আগে নোভাক জোকোভিচ এক নম্বরে ছিলেন ১২২ সপ্তাহ ধরে। সর্বোচ্চ ৩০২ সপ্তাহ ধরে বিশ্বের এক নম্বর ছিলেন রজার ফেডেরার ।

স্কটিশ এন্ডি মারের বয়স এখন ২৯। কতদিন তিনি থাকতে পারবেন বিশ্ব টেনিসের শীর্ষস্থানে?

এবারের মাঠে ময়দানেতে এ নিয়ে কথা বলেছেন সাবেক ভারতীয় টেনিস খেলোয়াড় জয়দীপ মুখার্জি - যিনি নিজে ১৯৬০ ও ৭০ এর দশকে উইম্বলডন, ইউএস ওপেন, ফ্রেঞ্চ ওপেন এবং অস্ট্রেলিয়ান ওপেন মিলিয়ে মোট সাত বার গ্র্যাড স্ল্যামে চতুর্থ রাউন্ড পর্যন্ত খেলেছেন, উইম্বলডনে তিনবার ডাবলসে কোয়ার্টার ফাইনাল এবং ডেভিস কাপে একবার ফাইনাল খেলেছেন।

ছবির ক্যাপশান,

পেশাদার ক্রিকেটাররা খেলা ছাড়ার পর হারানো জীবনের জন্য বেদনা বোধ করেন

ক্রিকেটারদের অবসর নেবার পরে কি হয়?

একজন পেশাদার ক্রিকেটার যতদিন খেলছেন ততদিন তার জীবন বর্ণময়।

খেলা। খেলার সূত্রে দেশে-বিদেশে যাওয়া, ড্রেসিংরুম, মাঠ, দর্শকদের উল্লাস-করতালি, টিভি-পত্রপত্রিকায় প্রচার-প্রশংসা, ভক্তদের মুগ্ধ দৃষ্টি -এ সবই তারা উপভোগ করেন।

কিন্তু অবসর গ্রহণের পরদিন? হঠাৎ যেন জীবনটা বদলে যায়, এক বিরট শূন্যতা অনুভব করেন তারা।

অনেকে ক্রিকেট ছাড়ার পর সফলভাবে ভিন্ন কেরিয়ার গড়ে তুলেছেন।

কিন্তু অনেক খেলোয়াড়ই এই পরিবর্তনের সাথে মানিয়ে নিতে পারেন না। ফুটবলের মতো বিশ্বব্যাপি জনপ্রিয় খেলায় এই চাপ হয়তো আরো বেশি। অনেক ফুটবলার অবসরের পর মানসিক সমস্যায় ভোগেন, কেউ বা নেশা আর জুয়ার পেছনে টাকা উড়িয়ে নি:স্ব হয়ে যান। ]

ক্রিকেটারদের মধ্যেও কোন কোন সময় তা হয় না তা নয়। অনেকে পেশাদার ক্রিকেট ছেড়ে দেবার পর খাপ খাইয়ে নিতে না পেরে মানসিক সমস্যায় ভোগেন।

এবারের মাঠে ময়দানেতে শুনবেন তিন জন সাবেক ক্রিকেটারের কথা । এরা হলেন অস্ট্রেলিয়ার ক্রিস রজার্স, ইংল্যান্ডের এসেক্স কাউন্টির গ্রাহাম নেপিয়ার, আর সাবেক ইংলিশ ফাস্ট বোলার এ্যালান মুলালি।

বিবিসির কাছে তারা বলেছেন, কিভাবে তারা খেলা ছেড়ে দেবার পরের জীবনের সাথে মানিয়ে নিয়েছেন।