ইংল্যান্ডে ফুটবলারদের ওপর যৌন নির্যাতনের তদন্ত

কয়েকজন সাবেক ফুটবলার: বিবিসিকে তারা বলছেন কিভাবে তারা যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন
Image caption কয়েকজন সাবেক ফুটবলার: বিবিসিকে তারা বলছেন কিভাবে তারা যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন

ইংলিশ ফুটবল জগতে খেলোয়াড়দের ওপর যৌন নিপীড়নের যেসব অভিযোগ উঠেছে সেগুলো তদন্ত করে দেখছে ফুটবল এসোসিয়েশন।

সাবেক ফুটবলারদের অনেকে সম্প্রতি সংবাদ মাধ্যমের কাছে এগিয়ে এসে বলেছেন, তরুণ বয়সে তারা যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

এসসব অভিযোগ খতিয়ে দেখছে পুলিশের চারটি বাহিনী। এবং এসব অভিযোগ শোনার জন্যে একটি হটলাইন খোলা হলে তাতে একশোটিরও বেশি কল এসেছে।

ফুটবল কর্তৃপক্ষ এফএ বলছে, এসব অভিযোগের ব্যাপারে তারা পুলিশের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছে। তবে "খুব সতর্কভাবেই আমরা কাজ করছি যাতে এধরনের অপরাধের বিচার আমরা ভণ্ডুল করে দেই।"

ফুটবল এসোসিয়েশন বলছে, এবিষয়ে তারা নিজেরাও এখন তদন্ত করে দেখছে। তাতে দেখা হচ্ছে কখন এসব ঘটেছে, কি ধরনের অভিযোগ এবং কোন কোন ক্লাবে এসব অভিযোগ উঠেছে এবং অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কি ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

শিশুদের নিরাপত্তার ব্যাপারে গত ২০০০ সাল থেকে এফএকে সহযোগিতা করছে একটি ইউনিট। এই ইউনিটও এসব অভিযোগ তদন্ত করে দেখবে।

Image caption মুখ খুলেছেন এসব সাবেক ফুটবলার

যেসব ফুটবলার অভিযোগ করেছেন তাদের মধ্যে রয়েছেন ডেভিড হোয়াইট, এন্ডি উডওয়ার্ড এবং পল স্টুয়ার্ট।

তেতাল্লিশ বছর বয়সী উডওয়ার্ড কিভাবে তার সাবেক কোচ ব্যারি ব্যানেলের হাতে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন সংবাদ মাধ্যমের কাছে তার ভয়াবহ বিবরণ তুলে ধরেছেন।

যৌন অপরাধের জন্যে এর আগে ব্যারি ব্যানেলের কারাদণ্ড হয়েছে।

সাবেক আরো দুজন ফুটবলার ক্রিস আন্সওয়ার্থ এবং জ্যাস ডানফোর্থও বিবিসির একটি অনুষ্ঠানে বলেছেন তারাও বেরি বেনেলের হাতে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

বলা হচ্ছে, ২০ জনের মতো সাবেক ফুটবলার এধরনের যৌন নির্যাতনের অভিযোগ নিয়ে সামনে এগিয়ে এসেছেন।

এবং ছয় থেকে সাতটি ক্লাবে এসব ঘটনা ঘটেছে।

Image caption ব্যারি ব্যানেল

ধারণা করা হচ্ছে, তরুণ ফুটবলারদের আরো অনেকেই যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। এবং সারা দেশের ক্লাবগুলোতেই এধরনের ঘটনা ঘটেছে।

তবে যারা অভিযোগ নিয়ে আসছেন তাদের কেউই এখন আর ফুটবলার নন।

যেসময় তাদের ওপর নির্যাতন করা হয়েছে তখন তাদের বয়স ছিলো ৬ থেকে ১৬ বছর।

অল্প বয়সের কারণে এই নির্যাতনের কথা তারা মুখ ফুটে কাউকে বলতেও পারেনি।

সম্পর্কিত বিষয়

চিঠিপত্র: সম্পাদকের উত্তর