রোহিঙ্গা মুসলিম 'গণহত্যার' নিন্দায় নাজিব রাযাক

মালয়েশিয়া, রোহিঙ্গা
ছবির ক্যাপশান,

নজীব রাযাক

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাযাক এক জনসভায় দেয়া বক্তৃতায় মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর তার ভাষায় যে গণহত্যা চলছে তার কড়া নিন্দা করেছেন।

রাজধানী কুয়ালালামপুরে রোহিঙ্গাদের প্রতি সমর্থন জানাতে ডাকা ওই সভায় মি. রাযাক বলেন, তিনি বার্মার নেত্রী অং সান সুচি এবং তার সরকারের প্রতি একটি শক্ত বার্তা পৌঁছে দিতে চান।

গত অক্টোবর মাস থেকে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তবর্তী রাখাইন রাজ্যের বাসিন্দা রোহিঙ্গা মুসলিম ও সরকারি বাহিনীর মধ্যে তীব্র সংঘর্ষ চলছে। এতে হাজার হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে গেছে।

মি. রাযাক আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলোর প্রতি আহ্বান জানান, যেন তারা রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর পরিকল্পিতভাবে যে হত্যা, ধর্ষণ ও নির্যাতনের যেসব খবর আসছে - সেসব তদন্ত করা হয়।

মি. রাযাক তার বক্তৃতায় অং সান সুচি যেভাবে দৃশ্যতই সামরিক অভিযান মেনে নিচ্ছেন - তার সমালোচনা করে তাকে নোবেল শান্তি পুরস্কার দেয়ার যথার্থতার নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।

তিনি জনতার উদ্দেশ্যে বলেন, তাদের অবশ্যই ইসলাম এবং মুসলিমদের পক্ষে দাঁড়াতে হবে।

ছবির ক্যাপশান,

মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়াতেও বহু রোহিঙ্গা মুসলিম শারণার্থী বাস করছে

মিয়ানমার অভিযোগ করেছে যে মালয়েশিয়া তাদের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করছে। মিয়ানমারের সংখ্যাগরিষ্ঠ বৌদ্ধদের অনেকেই রোহিঙ্গাদেরকে বাংলাদেশ থেকে আসা অবৈধ অভিবাসী বলে মনে করে।

কেউ কেউ অবশ্য মি. রাযাকের এই সব কথাবার্তা বলার সময় নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। কারণ তার বিরুদ্ধে আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ ওঠার পর তিনি ব্যাপকভাবে অজনপ্রিয় হয়ে পড়েছেন, কিন্তু তাকে শিগগীরই নির্বাচনী লড়াইয়ে নামতে হবে।

অবশ্য রোহিঙ্গা মুসলিমদের প্রতি মালয়েশিয়া নিজেও ভালো আচরণ করেনি, এমন অভিযোগও আছে।

গত বছর নৌকায় করে আসা বহু রোহিঙ্গা শরণার্থীকে ফিরিয়ে দিয়েছিল মালয়েশিয়া, যার জন্য দেশটির সমালোচনা হয়। তবে মালয়েশিয়ায় এখন প্রায় ৫০ হাজার রোহিঙ্গা বাস করছে - যাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন বৈষম্যমূলক আচরণ করা হয় বলে অভিযোগ আছে।