নিষিদ্ধ হচ্ছে ডিজেল-চালিত যান।গাড়ির ভবিষ্যত কি?
আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

বিশ্বের চারটি বড়ো শহরে নিষিদ্ধ হচ্ছে ডিজেল-চালিত যান।গাড়ির ভবিষ্যত কি?

বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ চারটি শহরের মেয়রেরা বলেছেন, আগামী ৮ বছরে তারা তাদের শহরে ডিজেল-চালিত যানবাহন নিষিদ্ধ করবেন।

এই চারটি শহর হচ্ছে প্যারিস, মেক্সিকো সিটি, মাদ্রিদ এবং এথেন্স।

এসব শহরের নেতারা বলছেন, ২০২৫ সালের মধ্যে তারা শহরের রাস্তায় ডিজেল-চালিত ব্যক্তিগত গাড়ি থেকে শুরু করে বাস লরি সবকিছুই উঠিয়ে দেবেন।

শহরে বায়ু দূষণের মাত্রা কমাতেই তাদের এই প্রতিশ্রুতি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসেবে হিসেবে এই বায়ু দূষণের কারণে প্রতিবছর ৩০ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়।

ইন্টারন্যাশনাল ইন্সটিটিউট ফর এনভায়রনমেন্ট এন্ড ডেভেলপমেন্ট এর একজন গবেষক সারাহ কোলেনব্র্যান্ডার বিবিসিকে বলেছেন, মানুষের স্বাস্থ্যের জন্যে, পেট্রোলের চাইতেও ডিজেল, আরো বেশি ঝুঁকির কারণ।

তিনি বলেন, "বিভিন্ন তথ্যপ্রমাণ থেকে এটাই আরো বেশি স্পষ্ট হচ্ছে যে, ডিজেল পোড়ালে শুধু যে কার্বনই নির্গত হয়, তা নয়। এছাড়াও সেখান থেকে বায়ু দূষণকারী আরো অনেক কিছুই প্রচুর পরিমাণে তৈরি হয়। বিশেষ করে ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র কিছু কণা যা ফুসফুসের কোষের ভেতরেও ঢুকে যেতে পারে। স্বল্প মেয়াদে আপনি যদি অ্যাজমা বা শ্বাসকষ্টে ভোগেন, তখন সেটা আরো খারাপ হতে পারে।"

"আর দীর্ঘ মেয়াদে ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও বেড়ে যায়। বিশেষ করে যেসব শহরে বায়ু দূষণের মাত্রা খুব বেশি সেসব শহরে বসবাস ও কাজ করলে এই ঝুঁকিটা আরো বেড়ে যায়," বলেন তিনি।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, ডিজেল ইঞ্জিন থেকে যেসব ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র কণা তৈরি হয় সেগুলোর কারণে শ্বাসপ্রশ্বাসজনিত অসুখ এবং হৃদরোগও হতে পারে। আন্তর্জাতিক এই পরিবেশ বিজ্ঞানী বলছেন, ডিজেল-চালিত গাড়ি নিষিদ্ধ করার পরিকল্পনার প্রভাব খুবই বিস্তৃত হতে পারে।

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption মাদ্রিদেও নিষিদ্ধ হচ্ছে ডিজেল-চালিত গাড়ি

"এই নিষেধাজ্ঞা যখন কার্যকর হবে, লোকজন যখন পরিবেশবান্ধব গাড়ি ব্যবহার করতে শুরু করবে, তখন এসব শহরে বায়ুর গুণগত মান অনেক উন্নত হবে। এর ফলে শ্বাসকষ্টজনিত মানুষের মৃত্যুর সংখ্যাও কমে আসবে। আর দীর্ঘ মেয়াদে গাড়ির বাজারেও বড় রকমের পরিবর্তন আসবে।"

তিনি বলেন, রাস্তায় ডিজেল-চালিত গাড়ির সংখ্যা কমবে। তার মানে, গাড়ি নির্মাতারা এখন এমন সব গাড়ি তৈরির কাজে নেমে পড়বে যার ফলে বায়ু দূষণের পরিমাণ কমে যাবে।

এই চারটি শহরের মেয়র বলছেন, লোকজন যাতে তাদের ডিজেল-চালিত গাড়ির পরিবর্তে ইলেকট্রিক, হাইড্রোজেন এবং হাইব্রিড গাড়ি নিয়ে রাস্তায় নামে সেজন্যে তাদেরকে উৎসাহিত করবেন।

এজন্যে তাদেরকে নানা রকমের সুযোগ সুবিধা দেওয়ার কথাও তারা বলেছেন। বিবিসির পরিবেশ বিষয়ক সংবাদদাতা বলছেন, এই ঘোষণার ফলে, গাড়ি প্রস্ততকারক কোম্পানিগুলো এখন পরিবেশবান্ধব গাড়ি নির্মাণে উঠেপড়ে লাগবে।

কারণ অন্যান্য শহরেও ডিজেল-চালিত গাড়িও উপরে এই ধরণের নিষেধাজ্ঞা জারি এখন শুধু সময়ের ব্যাপার।

জ্বালানী হিসেবে এই ডিজেলের ব্যবহার নিয়ে শুনুন বাংলাদেশে জ্বালানী বিশেষজ্ঞ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নবায়নযোগ্য জ্বালানী ইন্সটিটিউটের শিক্ষক সাইফুল হকের সাক্ষাৎকার।

স্মার্ট লেপ

বিজ্ঞানীরা এমন এক ধরনের লেপ তৈরি করেছেন যা নিজেই নিজেই বিছানায় সমানভাবে ছড়িয়ে পড়বে।

এধরনের লেপ বা ড্যুভে তৈরি হয়েছে কানাডার মন্ট্রিয়ালে।

এরকম কমবেশি আমাদের সবারই হয়। সকালে ঘুম থেকে উঠে পড়েছি। কিন্তু বিছানাটা গোছাতে ইচ্ছে করছে না। সেখানে লেপটা এলোমেলো হয়ে পড়ে আছে।

এখন আর সেই সমস্যা নেই। আপনাকে আর সেই লেপ গুছাতে হবে না। লেপটা নিজেই নিজেকে গুছিয়ে ফেলবে।

Image caption স্মার্ট ড্যুভে

এটাকে বলা হচ্ছে স্মার্ট ড্যুভে। এর ভেতরে আছে টিউব যা বাতাস দিয়ে ফোলানো যায়। আর এই প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়েই স্বয়ংক্রিয়ভাবে লেপটিকে গোছানো হচ্ছে।

লেপের ভেতরে কিছু টিউবের গ্রিড ঢুকিয়ে দেওয়া হয়। এসব টিউব বাতাস দিয়ে ফোলানো যায়। সেই টিউবগুলো বাতাসের একটি পাম্পের সাথে যুক্ত থাকে।

বাতাসের কারণে সেই টিউবগুলো যখন শক্ত হয়ে উঠে তখনই লেপটা সোজা হয়ে বিছানার ওপর ছড়িয়ে পড়ে।

এজন্যে একটি মোবাইল অ্যাপও আছে। আপনি যখন বিছানা থেকে উঠে আসবেন তখন সেই অ্যাপ অন করলে পাম্প থেকে বাতাস বেরিয়ে ছড়িয়ে পড়বে ড্যুভের ভেতরে জালের মতো ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা টিউবের মধ্যে আর তখনই সেটা সমান হয়ে উঠবে।

এই স্মার্ট লেপের আবিষ্কারক টিনা কেওয়েটি বলছেন, "এমন মানুষও আছে আলসেমির কারণে যারা জানালার পর্দাটাও সরাতে চায় না। কিন্তু সত্যি বলতে কি, এর চেয়েও অলস আরো অনেকে আছেন।"

"আমার এক চাচা, যিনি হুইল চেয়ারে চলাচল করেন, তার জন্যে নিজের বিছানাটা গোছানো খুবই কষ্টের। ফলে যাদের শারীরিক অক্ষমতা আছে তারাও এখন অনেক বেশি স্বনির্ভর হয়ে উঠবে। একটা বাটনে চাপ দিলেই তৈরি হয়ে যাবে তাদের বিছানা," বলেন তিনি।

তবে এজন্যে খরচ করতে হবে আপনাকে। একটি সিঙ্গেল স্মার্ট ড্যুভের জন্যে খরচ পড়বে প্রায় চারশো ডলার।

বিজ্ঞানের আসর পরিবেশন করছেন মিজানুর রহমান খান