বার্লিন 'হামলাকারী' সম্পর্কে যা জানা গেছে

ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption ক্রিসমাসের ব্যস্ত বাজারের ওপর লরিটি উঠিয়ে দেওয়া হয়

জার্মানির রাজধানী বার্লিনে লরি চালিয়ে হামলার ঘটনা পুলিশ তদন্ত করে দেখছে।

শহরের একেবারে কেন্দ্রে ক্রিসমাসের ব্যস্ত একটি বাজারে দ্রুত গতিতে চলা একটি লরি উঠিয়ে দিয়ে এই হামলা চালানো হয়।

এতে ১২ জন নিহত হয়। আহত হয়েছে আরো ৪৮ জন।

প্রাথমিকভাবে পুলিশ এই ঘটনাটিকে সন্ত্রাসী হামলা বলেই মনে করছে।

বলা হচ্ছে, সন্দেহভাজন হামলাকারী জার্মানিতে একজন আশ্রয়প্রার্থী শরণার্থী। তিনি পাকিস্তানের নাগরিক।

গত বছর তিনি জার্মানিতে প্রবেশ করেছেন।

ঘটনাস্থলের কিছুটা দূর থেকে তাকে হামলার কিছুক্ষণের মধ্যেই আটক করা হয়।

তাকে এখন জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

জার্মান সংবাদ মাধ্যমে বলা হচ্ছে, এরপরই পুলিশ বার্লিন বিমান বন্দরের কাছে একটি শরণার্থী শিবিরে তল্লাশি চালিয়েছে।

লরির চালক ওই ক্যাম্পে অবস্থান করছিলো বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আরো পড়ুন: প্রত্যক্ষদর্শীদের চোখের সামনে দেখা ভয়াল অভিজ্ঞতা

খবরে বলা হচ্ছে, ছোট খাটো অপরাধের জন্যে পুলিশের খাতায় তার নাম ছিলো, তবে কোনো সন্দেহভাজন সন্ত্রাসী হিসেবে নয়।

হামলাকারীর সম্পর্কে কি জানা গেছে

নিরাপত্তা বাহিনীর সূত্র উল্লেখ করে জার্মান সংবাদ মাধ্যমে সন্দেহভাজন এই হামলাকারীকে চিহ্নিত করা হয়েছে ২৩ বছর বয়সী পাকিস্তানি এক নাগরিক হিসেবে। বলা হচ্ছে, তার নাম নাভিদ বি।

খবরে বলা হচ্ছে, এরপরই বার্লিনের টেম্পেলহফ বিমানবন্দরের একটি হ্যাঙারে অভিযান চালিয়েছে বিশেষ বাহিনী।

ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption লরিটি পোল্যান্ডে নিবন্ধিত

নিরাপত্তা বাহিনী বলছে, হামলার আগে ওই ব্যক্তি সেখানে অবস্থান করছিলো।

পুলিশের একজন মুখপাত্র উইনফ্রিড ভেনজেল বলেছেন, লরি থেকে নেমে পায়ে হেঁটে পালিয়ে যাওয়ার সময় প্রায় দুই মাইল দূর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আরো পড়ুন: তুরস্কে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূতকে হত্যার ফুটেজ

বার্লিনের একটি পার্ক টিয়েরগার্টেনের দিকে সে দৌড়ে পালাচ্ছিলো।

একজন পথচারী যিনি তাকে অনুসরণ করছিলেন, তিনি পুলিশকে ফোন করেন।

তার কিছুক্ষণ পরেই ভিক্টরি কলাম স্মৃতিসৌধের কাছ থেকে তাকে আটক করা হয়েছে।

লরিটি কোত্থেকে এসেছে?

পুলিশ বলছে, পোল্যান্ডের একজন নাগরিক লরিটির প্রকৃত চালক। তাকে চালকের আসনের পাশে যাত্রীর আসনে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে।

লরির মালিক, তিনিও পোল্যান্ডের নাগরিক, তিনি বলেছেন, তার চালকের সাথে তিনি সোমবার বিকেল চারটা পর্যন্ত কোনভাবেই যোগাযোগ করতে পারছিলেন না।

বার্তা সংস্থা এএফপিকে তিনি বলেন, "আমরা জানি না তার কি হয়েছে। সে আমার কাজিন। তার শিশু বয়স থেকে আমি তাকে চিনি। তার ব্যাপারে আমার আস্থা আছে।"

লরিটি পোল্যান্ডে নিবন্ধিত। তবে হামলার আগে ট্রাকটিকে পোল্যান্ড থেকে চালিয়ে আনা হয়েছে নাকি ইটালি থেকে ফিরে আসছিলো সেবিষয়ে এখনও নিশ্চিত করে কিছু জানা যায় নি।

সম্পর্কিত বিষয়

চিঠিপত্র: সম্পাদকের উত্তর