শরণার্থীকে ল্যাঙ মারা ক্যামেরাম্যানের সাজা

মিস লাসলো পা দিয়ে ল্যাঙ মেরে শিশুকে কোলে নেওয়া এই লোকটিকে ফেলে দেন
ছবির ক্যাপশান,

মিস লাসলো পা দিয়ে ল্যাঙ মেরে শিশুকে কোলে নেওয়া এই লোকটিকে ফেলে দেন

হাঙ্গেরি ও সার্বিয়ার সীমান্তের কাছে যে ক্যামেরাম্যান শরণার্থীদের ল্যাঙ মেরে ফেলে দিচ্ছিলেন আদালত তাকে সাজা দিয়েছে।

আদালত বলছে, এই অসদাচরণের জন্যে তার ওপর তিন বছর নজর রাখা হবে।

হাঙ্গেরির এই ক্যামেরাম্যানের নাম পেট্রা লাসলো। ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসে শরণার্থীরা যখন পুলিশের বেষ্টনী ভেঙে সামনের দিকে ছুটে যাচ্ছিলো তখন তিনি তাদের ছবি তুলছিলেন।

সেখানে ভিডিওতে তোলা ছবিতে দেখা যায় যে তিনি দু'জনকে লাথি মারছেন, যখন তারা ছুটে পালিয়ে যাচ্ছিলো। তাদের মধ্যে অল্প বয়সী একটি মেয়েও ছিলো।

একবার দেখা যায় তিনি ল্যাঙ মেরে একজন পুরুষকে ফেলে দিচ্ছেন যিনি একটি শিশুকে কোলে নিয়ে পুলিশের কাছ থেকে দৌড়ে পালিয়ে যাচ্ছিলেন।

এই ছবিটি সোশাল মিডিয়াতে ছড়িয়ে পড়লে নিন্দার ঝড় ওঠে।

পেট্রা লাসলো জানিয়েছেন, আদালতের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তিনি আপিল করবেন।

বিচারক ইলেস নানাসি বলেছেন, লাসলোর এই আচরণ সামাজিক আচরণের বিরোধী।

তার আইনজীবীর বক্তব্য ও যুক্তিকে প্রত্যাখ্যান করেছে আদালত। আইনজীবী বলেছিলেন যে তার মক্কেল নিজেকে রক্ষার চেষ্টা করছিলো।

ছবির ক্যাপশান,

একবার তিনি বলেছিলেন ভয় পেয়ে সেসময় তিনি এই খারাপ কাজটি করেছিলেন

"আমি যখন ঘুরে দাঁড়ালাম দেখি কয়েকশো মানুষ আমার দিকে তেড়ে আসছে। খুব ভীতিকর এক অবস্থা," বলেন ওই ক্যামেরাম্যান।

আদালতের শুনানিতে তিনি ভিডিও লিঙ্কের মাধ্যমে অংশ নেন এবং কখনো কখনো তাকে কাঁদতেও দেখা গেছে।

তিনি বলেন, ঘটনার পর থেকে তাকে প্রাণনাশেরও হুমকি দেওয়া হয়েছে।

ঘটনার পরপরই ল্যাঙ মারার ভিডিওটি সোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়লে তিনি যে টিভি চ্যানেলে কাজ করতেন সেখান থেকে তাকে বরখাস্ত করা হয়।