হেরে ১২৩ বছরের রেকর্ড ভাঙ্গলো বাংলাদেশ

বাংলাদেশের ক্রিকেটার
ছবির ক্যাপশান,

বলা যায় দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ অনেকটা মুখ থুবড়েই পড়েছে

বেসিন রিজার্ভে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সাত উইকেটে পরাজয়ের মাধ্যমে প্রায় ১২৩ বছরের পুরানো একটি রেকর্ড ভেঙ্গেছে বাংলাদেশ।

তবে এই নতুন রেকর্ড গড়ায় বাংলাদেশের খুশী হওয়ার মতো কিছু ঘটেছে, তা হয়তো বলা যাবে না।

রেকর্ডটি হলো প্রথম ইনিংসে সবচেয়ে বেশী রান করার পরও একটি টেস্ট ম্যাচে পরাজয়।

এতদিন এই অবাঞ্ছিত রেকর্ড ছিল অস্ট্রেলিয়ার।

সেই ১৮৯৪ সালে অস্ট্রেলিয়া তাদের প্রথম ইনিংসে ৫৮৬ রান করে ইংল্যন্ডের বিপক্ষে হেরেছিল সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে। ইংল্যান্ডকে ফলো অন করতে বাধ্য করেছিল অস্ট্রেলিয়া, তবে শেষ পর্যন্ত তারা ম্যাচ হারে ১০ রানে।

আর তাদের তাসমানিয়ান সাগরের ওপারের প্রতিবেশী নিউজিল্যান্ডের ওয়েলিংটনে শতবর্ষী সেই রেকর্ড ভেঙ্গে গেল বাংলাদেশের হাতে - অনেকটা প্রত্যাশার বিপরীতে।

প্রথম ইনিংসে বিশাল রান করার পরও টেস্টে হেরে যাওয়া অবশ্য বাংলাদেশের জন্যে নতুন কিছু নয়।

ছবির ক্যাপশান,

বেসিন রিজার্ভে শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশকে মাথা নিচু করেই মাঠ ছাড়তে হয়েছে

এ ধরনের পরাজয়ের যে টপ ফাইভ তালিকা রয়েছে, তাতে বাংলাদেশের নাম রয়েছে দু'বার।

ঢাকাতেই ২০১২ সালের নভেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে ৫৫৬ রান করেছিল, সফরকারীদের প্রথম ইনিংসে চার উইকেটে ডিক্লেয়ার করা ৫২৭ রানের জবাবে।

ঐ টেস্ট বাংলাদেশ হেরেছিল ৭৭ রানে।

অন্যদিকে, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বড় রান করে হারাটাও অবশ্য বাংলাদেশের জন্যে একেবারে নতুন কিছু নয়।

২০১০ সালে হ্যামিল্টনে নিউজিল্যান্ডের প্রথম ইনিংসের ৫৫৩ রানের জবাবে বাংলাদেশ তুলেছিল ৪০৮ রান। টেস্ট ম্যাচটি বাংলাদেশ হেরেছিল ১২১ রানে।

ওয়েলিংটনে দুই দলের প্রথম ইনিংসের মোট রান ছিল ১১৩৪ - এটি কোন টেস্টের প্রথম ইনিংসে তৃতীয় সর্বোচ্চ রান, যে টেস্টে জয়-পরাজয় নির্ধারিত হল।

এই তালিকায় সবার উপরে রয়েছে গত মাসে চেন্নাইয়ে অনুষ্ঠিত ভারত-ইংল্যান্ডের মধ্যকার টেস্ট ম্যাচটি, যেখানে প্রথম ইনিংসে দুই দলের রানের যোগফল ছিল ১২৩৬।

অন্যদিকে, বেসিন রিজার্ভে বাংলাদেশের দুই ইনিংসে রানের পার্থক্য ছিল ৪৩৫ - এ ধরণের তালিকায় সাত নম্বরে।