মায়ের সঙ্গে শেষ ফোনালাপ নিয়ে প্রিন্স হ্যারি ও প্রিন্স উইলিয়ামের 'অনুতাপ'

প্রিন্সেস ডায়ানার সঙ্গে প্রিন্স হ্যারি ও প্রিন্স উইলিয়াম
ছবির ক্যাপশান,

প্রিন্সেস ডায়ানার সঙ্গে প্রিন্স হ্যারি ও প্রিন্স উইলিয়াম

মা প্রিন্সেস ডায়ানার সঙ্গে শেষবার যে ফোনালাপটি হয়েছিল তা নিয়ে 'অনুতাপ' প্রকাশ করেছেন তাঁর দুই ছেলে প্রিন্স হ্যারি ও প্রিন্স উইলিয়াম।

১৯৯৭ সালের ৩১শে আগস্ট মায়ের ফোন কলটি খুব তাড়াতাড়িই রেখে দিয়েছিলেন তারা।

প্রিন্স উইলিয়ামের বয়স তখন ছিল ১৫ বছর আর প্রিন্স হ্যারির বয়স ছিল ১২ বছর।

প্রিন্সেস ডায়ানার বিশতম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে যে প্রামাণ্যচিত্র তৈরি করা হয়েছে সেখানে নিজের মাকে নিয়ে কথা বলেছেন উইলিয়াম ও হ্যারি।

প্রিন্স হ্যারি বলেছেন, "সেদিন এত তাড়াতাড়ি ফোনটা রেখে দিয়েছিলাম যে তা মনে করে সারাজীবন আমার আফসোস হবে"।

প্রিন্সেস ডায়ানা যে কতটা মজার মানুষ ছিলেন এবং সন্তান বড় করার প্রক্রিয়া যে তার আলাদা ছিল 'মজার' ছিল সেই কথাগুলোই প্রামাণ্যচিত্রে বর্ণনা করেছেন তাঁর দুই ছেলে।

উইলিয়াম ও হ্যারি বলেছেন, তাঁদের মা যেমন তাদের 'দুষ্টুমি' করতে উদ্বুদ্ধ করেছেন তেমনি কিভাবে ভালো মানুষ হওয়া যায় সে শিক্ষাও তিনি দিয়েছেন।

প্রিন্স হ্যারি বলেছেন তাঁর মা ছিলেন 'পুরোদমে একজন শিশু', যিনি রাজপ্রাসাদের বাইরের বাস্তব জীবন সম্পর্কে জানতেন।

ছবির উৎস, THE DUKE OF CAMBRIDGE AND PRINCE HARRY

মা ও ছেলের যেসব ছবি আগে কখনো প্রকাশ হয়নি তা এই প্রামাণ্যচিত্রে দেখা যাবে।

প্রিন্সেস ডায়ানার সঙ্গে শৈশব কেমন কেটেছে তা নিয়ে স্মৃতিচারণ করেছেন প্রিন্স হ্যারি ও প্রিন্স উইলিয়াম। তারা বলেছেন তাদের জীবন গঠনে তাদের মা-এর প্রভাব কতটা।

এই তথ্যচিত্রে প্রিন্সেস ডায়ানার ছবি রয়েছে এইচআইভি আক্রান্ত রোগীদের সঙ্গে, শিশু কল্যাণ, গৃহহারার মানুষ ও ভূমি মাইনের নিষিদ্ধকরণ সংক্রান্ত সমস্যাগুলো নিয়ে প্রিন্সেস ডায়ানার যে ভূমিকা তা প্রামাণ্যচিত্রে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে এবং সঙ্গে তাঁর দুই ছেলেও রয়েছেন।

১৯৯৭ সালের ৩১মে আগস্ট গাড়ি দুর্ঘটনায় মারা যান প্রিন্সেস ডায়ানা।

প্রিন্স উইলিয়াম বলেছেন ওই অনুষ্ঠানের অংশ হওয়াটা প্রাথমিকভাবে 'কিছুটা কঠিন' হলেও 'মায়ের মৃত্যুর কষ্ট ভুলে যাবার একটা প্রক্রিয়া'ও ছিল সেটি।

তিনি বলেছেন "মায়ের কাজ আর আমাদের ওপর তাঁর যে প্রভাব সেটা প্রকাশের অন্যতম একটা উপায় এটি"।

তবে ডিউক অব ক্যামব্রিজ বলেছেন মায়ের মৃত্যুর আগে ফোনে তাদের শেষ যে আলাপ হয়েছিল তা 'সারাজীবন মনের মধ্যে বয়ে বেড়াতে হবে'।

ছবির উৎস, Image copyrightTHE DUKE OF CAMBRIDGE AND PRINCE HA

ছবির ক্যাপশান,

প্রিন্স উইলিয়ামকে সঙ্গে নিয়ে প্রিন্সেস ডায়ানা যখন এই ছবিটি তুলেন তখন তিনি গর্ভবতী ছিলেন। "বিশ্বাস করো বা নাই করো, এই ছবিটিতে তুমি আমার সঙ্গে আছো"- অনুষ্ঠানে প্রিন্স হ্যারিকে বলেন ডিউক অব ক্যামব্রিজ।

সেদিন তারা ছিলেন স্কটল্যান্ডে রানীর বাড়ি বালমোরালে, চাচাতো ভাইবোনদের সাথে খেলাধুলায় ব্যস্ত ছিলেন প্রিন্স উইলিয়াম ও প্রিন্স হ্যারি।

" হ্যারি এবং আমি ফোন রাখার জন্য খুব ব্যস্ত ছিলাম এবং খুব তাড়াতাড়ি 'বিদায়, পরে দেখা হবে' বলে ফোনটা রেখে দিলাম....যদি আমি যদি জানতাম এরপর কী ঘটতে যাচ্ছে, ওভাবে ফোনটা রেখে দিতাম না"- বলেন প্রিন্স উইলিয়াম।

সাক্ষাৎকারে প্রিন্স উইলিয়াম বলেছেন, সেদিন সেই শেষ ফোনালাপে তাঁর মা কী বলেছিলেন এখনো সেটা মনে আছে-তবে সেই কথার বিস্তারিত তিনি জানাননি।

প্রিন্স হ্যারি বলেন , "প্যারিস থেকে কল করেছিলেন মা। কী বলেছিলেন মনে নেই। কিন্তু ফোন কলটি এতই সংক্ষিপ্ত ছিল যে তার জন্য সারাজীবন আমি অনুশোচনা করবো"।

আইটিভি'র ওই ডকুমেন্টারিতে দুই প্রিন্সকে দেখা যায় মায়ের সঙ্গে তাদের অপ্রকাশিত ছবির অ্যালবামগুলো দেখছেন।

মায়ের স্মৃতিচারণ করে প্রিন্স হ্যারি বলেন, "আমার মা ছিলেন ভেতর ও বাইরে শিশুর মতো"।

"যখন কেউ আমাকে বলে, 'তোমাদের মা মজার মানুষ ছিল, একটা উদাহরণ দাওতো' তখনই আমার মাথায় তার হাসির শব্দ শুধু বাজে আর বাজে। আমার মা বলতেন, তোমরা যত ইচ্ছে দুষ্টুমি করতে পারো শুধু চেষ্টা করবে যেন দুষ্টুমি ধরা না পড়ে"।

"আমার মা ছিলেন দুষ্টুমি ভরা অভিভাবকদের মধ্যে অন্যতম একজন। আমরা যখন ফুটবল খেলতাম সে সময় তিনি এসে দেখতেন এবং লুকিয়ে লুকিয়ে আমাদের মোজার মধ্যে মিষ্টি দিতেন"।

ছবির উৎস, THE DUKE OF CAMBRIDGE AND PRINCE HARRY

ছবির ক্যাপশান,

ওই অনুষ্ঠানে যেসব ছবি দেখানো হয়েছে সেগুলো প্রিন্সেস ডায়ানার ব্যক্তিগত অ্যালবাম থেকে নেয়া হয়েছে।

প্রিন্স উইলিয়াম বলে, "মা খুব সাধারণ ছিলেন এবং হাসি-ঠাট্টা-দুষ্টুমিতে মেতে থাকতেই তিনি বেশি পছন্দ করতেন। রাজপ্রাসাদের বাইরের জীবনটাকেও তিনি উপলব্ধি করতে পারতেন, তিনি এক ধরনের 'জোকার' ছিলেন"।

প্রিন্স উইলিয়াম মনে করেন বেঁচে থাকলে প্রিন্সেস ডায়ানা চমৎকার ও আমুদে একজন দাদী হতেন, বাচ্চাদের কাছে সবসময় দাদীর গল্প করে তাঁর স্মৃতি বাঁচিয়ে রেখেছেন বলে জানান তিনি।

প্রিন্স উইলিয়াম ও প্রিন্স হ্যারির কাছে ডায়ানা হলেন "পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মা"।

ছবির উৎস, PA

ছবির ক্যাপশান,

প্রিন্স হ্যারির বয়স এখন ৩২ ও প্রিন্স উইলিয়ামের বয়স ৩৫, তারা বলেছেন তাদের মা ডায়ানা ছিলেন 'শ্রেষ্ঠ মা'।