ইসলামের পবিত্রতম স্থান কাবা শরীফের নামে টুইটার একাউন্ট

কাবা'র টুইটার একাউন্ট সচল হয়েছে বৃহস্পতিবার থেকে ছবির কপিরাইট AFP
Image caption কাবা'র টুইটার একাউন্ট সচল হয়েছে বৃহস্পতিবার থেকে

ইসলামের পবিত্রতম স্থান কাবা শরীফের নামে একটি টুইটার একাউন্ট খোলা হয়েছে। সেটি থেকে গতকাল থেকে টুইট করা হচ্ছে। এর নিজস্ব 'ইমোজি'ও তৈরি করা হয়েছে।

ইতোমধ্যে এই টুইটার একাউন্টটি ফলো করছে হাজার হাজার মানুষ।

মক্কার মসজিদের কেন্দ্রস্থলে কাবা-মুখী হয়েই সারা বিশ্বের মুসলিমরা নামাজ পড়েন।

বৃহস্থপতিবার হতে @হোলিকাবা টুইটার একাউন্ট থেকে টুইট করা শুরু হয়। সেদিন মক্কায় হজ্জ্ব পালনের জন্য জড়ো হয়েছিলেন প্রায় বিশ লাখ মুসলিম।

হজ্বের আনুষ্ঠানিকতা হিসেবে সব হাজীকে সাতবার এই কাবা প্রদক্ষিণ করতে হয়।

এই টুইটার একাউন্ট থেকে বৃহস্পতিবার লাইভ পেরিস্কোপ ভিডিওতে কাবা শরীফের 'কিসওয়া', অর্থাৎ যে কালো এবং সোনালি পর্দায় কাবা শরীফ ঢাকা থাকে, সেটি বদলানোর দৃশ্য দেখানো হয়।

হাজার হাজার মানুষ এই ভিডিও দেখেন এবং এটি রি-টুইট করেন।

ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption কাবা শরীফ সারা বিশ্বের মুসলিমদের কাছে পবিত্রতম স্থান

কাবা শরীফের নামে টুইটার একাউন্টটি খোলা হয় গত মার্চে। কিন্তু এটি আসলে সচল হয় গত বৃহস্পতিবার।

এই একাউন্ট থেকে শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ৪৮টি টুইট করা হয়। তখন পর্যন্ত এই একাউন্টের ফলোয়ার ছিল ২৭ হাজারের কিছু বেশি।

হজের সময় কাবা শরীফে গিয়ে যারা মোবাইল ফোন ব্যবহার করতেন, তাদের এর আগে ভৎর্সনার মুখোমুখি হতে হতো। কিন্তু ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে কাবার পদার্পনকে ইসলামের কঠোর অনুশাসন মেনে চলা লোকজন কিভাবে দেখছেন তা এখনো স্পষ্ট নয়।

ছবির কপিরাইট Google Streetview
Image caption গুগল স্ট্রীট ভিউতে কাবা শরীফের ভেতরের দৃশ্য

যদিও কাবার এই একউন্টটি টুইটারের যাচাই করা টিক চিহ্ন আছে, তারপরও পরিস্কার নয় এর পেছনে কারা।

বিবিসি আরবী সার্ভিসের সোশ্যাল মিডিয়া বিশেষজ্ঞ ফয়সাল ইরশাইদ জানিয়েছেন, সৌদি সরকারের সংস্কৃতি ও তথ্য মন্ত্রণালয়ের কোন একাউন্টের সঙ্গে এই টুইটার একাউন্টের কোন সম্পর্ক দেখা যাচ্ছে না।