ফ্লোরিডায় আঘাত হেনেছে হারিকেন ইরমা

ছবির কপিরাইট Joe Raedle
Image caption ফ্লোরিডায় বাতাসের গতি দুশো কিলোমিটার

আটলান্টিক মহাসাগরে স্মরণকালের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী ও ভয়ংকর ঘুর্ণিঝড় ইরমা এখন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় আঘাত হানতে শুরু করেছে।

ফ্লোরিডা রাজ্যের গভর্নর রিক স্কট বলেছেন, রাজ্যের দক্ষিণ-পূর্ব এলাকায় প্রচন্ড ঝড় হচ্ছে, ২৫ হাজার লোকের বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ ছিন্ন হয়ে গেছে। তিনি বলেন, উপকুলের দিকে দুশো কিলোমিটার বেগে বাতাস বইছে এবং বাড়িঘর ডুবিয়ে দেয়ার মতো জলোচ্ছাস হবারও সম্ভাবনা রয়েছে।

এর আগে হারিকেনটি ফ্লোরিডা উপকুলে আ্ঘাত হানবে বলে পূর্বাভাস দেয়ার পর রাজ্যজুড়ে প্রায় ৬০ লাখ মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরে যেতে বলা হয়।

ছবির কপিরাইট Handout
Image caption উপগ্রহ চিত্রে হারিকেন ইরনা

এর আগে হারিকেন ইরমা কিউবায় আঘাত হানে। আবহাওয়াবিদরা বলছেন, ক্যাটাগরি পাঁচ মাত্রার এই ঘুর্ণিঝড়টি কিউবার ক্যামাগুয়ে দ্বীপপুঞ্জে আঘাত হানার পর এখন কিছুটা দুর্বল হয়ে পড়েছে।

ফ্লোরিডার গভর্ণর রিক স্কট বলেছেন, ঘুর্ণিঝড়টি আকারে পুরো ফ্লোরিডা রাজ্য থেকেও বড়।

এটি রাজ্যের এক উপকুল থেকে আরেক উপকুল পর্যন্ত জীবন ধ্বংসকারী প্রভাব ফেলবে।

ছবির কপিরাইট Joe Raedle
Image caption ঝড়ের পূর্বাভাস দিয়ে ৬০ লাখ মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরে যেতে বলা হয়

তিনি রাজ্যের সব ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা থেকে লোকজনকে সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

জরুরী সেবা সংস্থার কর্মীরা বলছেন, ৫৬ লাখ মানুষকে তাদের বাড়ীঘর ছেড়ে সরে যেতে বলা হয়েছে।

অর্থাৎ ফ্লোরিডার মোট জনসংখ্যার এক চতুর্থাংশকেই তাদের বাড়িঘর ছাড়তে হয়েছে।

ছবির কপিরাইট Chip Somodevilla
Image caption হাজার হাজার লোক গাড়িতে করে বাড়ি ছেড়ে যাচ্ছে

হাজার হাজার মানুষ এরই মধ্যে বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছে।

নিরাপদ আশ্রয়ের সন্ধানে ছুটছে আরও হাজার হাজার মানুষ।

ফলে হাইওয়েগুলোতে গাড়ীর দীর্ঘ জট তৈরি হয়েছে। পেট্রোল স্টেশনগুলোতে দেখা দিয়েছে জ্বালানির সংকট।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন:

রোহিঙ্গাদের ত্রাণে লাগবে সাড়ে ৭ কোটি ডলারেরও বেশি

সীমান্তে মাইন পেতে রেখেছে মিয়ানমারের বাহিনী

আন্তর্জাতিক জিহাদিদের পরবর্তী গন্তব্য মিয়ানমার?

দুদিনে রোহিঙ্গা শরষার্থী বাড়লো এক লাখ

ফোনে কথার পরই সৌদি-কাতার যোগাযোগ আবার বন্ধ