'বিচারপতি সিনহা জানিয়েছেন তিনি ক্যান্সারের রোগী' - বিবিসিকে আইনমন্ত্রী

প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা ছবির কপিরাইট ফোকাস বাংলা
Image caption প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা

সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় নিয়ে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ এবং সরকারের কাছ থেকে প্রচণ্ড চাপের মুখে পড়েছিলেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা।

অব্যাহত টানাপড়েনের মাঝে, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক আজ (মঙ্গলবার) নিশ্চিত করেছেন প্রধান বিচারপতি তার অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে সোমবার থেকে এক মাসের ছুটিতে গেছেন।

বিবিসি বাংলাকে মন্ত্রী বলেন, "প্রেসিডেন্টকে লেখা চিঠিতে প্রধান বিচারপতি জানিয়েছেন তিনি ক্যান্সারের রোগী, আরো অন্যান্য রোগে তিনি আক্রান্ত। ফলে তার বিশ্রাম দরকার।"

তবে ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় দেয়ার পর থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা থেকে শুরু করে সরকার এবং সরকারি দলের একাধিক নেতা যেভাবে বিচারপতি সিনহাকে সমালোচনা করেছেন, তাতে এই ছুটি নিয়ে স্বভাবতই বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠেছে।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির প্রেসিডেন্ট জয়নুল আবেদিন বলেছেন - প্রধান বিচারপতি ছুটি নেননি, তাকে ছুটি নিতে বাধ্য করা হয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়াতেও বহু মানুষ অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে প্রধান বিচারপতির এই ছুটি নেওয়া নিয়ে সন্দেহ, অবিশ্বাস প্রকাশ করছেন।

Image caption আইনমন্ত্রী আনিসুল হক

কিন্তু আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন এসব সন্দেহ একবারেই অমূলক। "অসুস্থতা সবসময় জানান দিয়ে আসেনা.. তাদের উদ্দেশ্য সফল হয়নি বলে সুপ্রিম কোর্টে বিএনপির কিছু আইনজীবী চিল্লাচিল্লি করছেন, সেটা যে ভিত্তিহীন এটা আমাকে বলতেই হচ্ছে।"

"এটাকে রাজনীতি-করণের কোনো কারণ নেই। ওনাদের হয়তো কোনো দুরভিসন্ধি ছিলো।"

সম্ভাব্য দুরভিসন্ধি কি? বিবিসির এই প্রশ্নে আইনমন্ত্রী বলেন পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত বিএনপি নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের কিছু উদ্ধৃতি উল্লেখ করেন। "গয়েশ্বর চন্দ্র রায় কি বলেছেন আজকের খবরের কাগজে আপনারা দেখেননি? তিনি বলেছেন বিএনপি ক্ষমতায় না আসতে পারলেও এই সরকারের আর বেশিদিন নেই। কি বোঝাতে চাইছেন তিনি?"

সম্পর্কিত বিষয়