আমেরিকায় ক্যাসপারস্কি ব্রিচ করেছিল রুশ হ্যাকাররা

ইউজিন ক্যাসপারস্কি তার সংস্থা প্রতিষ্ঠা করেন ১৯৯৭ সালে ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption ইউজিন ক্যাসপারস্কি তার সংস্থা প্রতিষ্ঠা করেন ১৯৯৭ সালে

মার্কিন সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, দুবছর আগে রাশিয়ান হ্যাকাররা যখন ক্যাসপারস্কি সাইবার সিকিওরিটি সফটওয়্যারের গোপনীয়তা ভেদ করছিল, তখন ইসরায়েলি গোয়েন্দারা নীরব দর্শক হয়ে ছিল।

নিউ ইয়র্ক টাইমস ও ওয়াশিংটন পোস্টে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, রাশিয়ানরা তখন বিভিন্ন মার্কিন গোয়েন্দা কর্মসূচী সম্পর্কে তথ্য জোগাড় করতে চাইছিল।

কিন্তু ইসরায়েলি গোয়েন্দারা নিজেরাই যখন ওই সফটওয়্যারের গোপনীয়তা ভেদ করতে যায়, তারা রাশিয়ানদেরই তৎপরতার কথা জেনে যায়।

ক্যাসপারস্কি অবশ্য বলেছে তাদের এই ধরনের কোনও ঘটনার কথা জানা নেই। সংস্থাটি আরও দাবি করেছে, তারা এর সঙ্গে আদৌ জড়িত নয় বা রুশ কর্তৃপক্ষের সঙ্গেও তাদের কোনও যোগসাজশ কখনও ছিল না।

গত মাসেই মার্কিন প্রশাসন সিদ্ধান্ত নিয়েছিল যে তাদের কোনও কম্পিউটারে ওই রুশ সংস্থার সফটওয়্যার আর ব্যবহার করা হবে না।

জানা যাচ্ছে যে ইসরায়েলিরাই না কি মার্কিন প্রশাসনকে এ ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়েছিল, তার পরই ক্যাসপারস্কিকে নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

আরো পড়ুন:রোহিঙ্গা সংকট: ‘আরসা’র সত্য অনুসন্ধানে বিবিসি

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption ক্যাসপারস্কি বিশ্বের অন্যতম সেরা অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার নির্মাতা হিসেবে স্বীকৃত

মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা এজেন্সি (এনএসএ)-র একজন কর্মী তার বাড়ির কম্পিউটারে ক্যাসপারস্কি অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার বসিয়েছিলেন - তার বাড়ির কম্পিউটার থেকেই বহু গোপনীয় নথিপত্র চুরি হয়েছে বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

তবে এনএসএ, হোয়াইট হাউস বা ওয়াশিংটনে ইসরায়েলি দূতাবাস এ ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করেনি।

নিউ ইয়র্ক টাইমস জানাচ্ছে, তারা রাশিয়ার দূতাবাসকে এ ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানাতে অনুরোধ করেছিল - কিন্তু তারা সেই অনুরোধের কোনও জবাব দেয়নি।

আর ক্যাসপারস্কি সংস্থার পক্ষ থেকেএকটি বিবৃতি জারি করে এই গোটা ঘটনায় তাদের কোনও দায় নেই বলে দাবি করা হয়েছে।

তারা বলছে ক্যাসপারস্কি এ বিষয়ে আদৌ অবহিত ছিল না।

আমাদের পেজে আরও পড়ুন :

'মিয়ানমার চেয়েছিল রোহিঙ্গারা কখনও না ফিরুক'

কীভাবে অ্যামাজনকে ৫০ লক্ষ টাকা ঠকাল দিল্লির যুবক

অপ্রাপ্তবয়স্ক স্ত্রীর সাথে যৌন সম্পর্কও ধর্ষণ: ভারতের আদালত