'উড়োজাহাজ দিয়ে নাশকতার পরিকল্পনার সন্দেহে' বাংলাদেশ বিমানের পাইলট গ্রেফতার

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption বিমান উড়িয়ে লক্ষ্যবস্তুতে হামলার পরিকল্পনার কথা বলছে র‍্যাব

'উড়োজাহাজ দিয়ে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানার এক জঙ্গী পরিকল্পনা' করার অভিযোগে বাংলাদেশের জাতীয় বিমান সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একজন বৈমানিকসহ চারজনকে গ্রেফতার করেছে বিশেষ পুলিশ র‍্যাব।

আজ এক সংবাদ ব্রিফিং-এ র‍্যাবের মুখপাত্র মুফতি মাহমুদ খান বলেন, একটি বিমানের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সেই বিমান দিয়ে 'সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের ব্যক্তিবর্গের' বাসভবনে আঘাত করবে বলে তার পরিকল্পনা ছিল।

র‍্যাবের এই কর্মকর্তা জানান, গ্রেফতারকৃত বৈমানিকের নাম সাব্বির ইমাম এবং তিনি বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একজন ফার্স্ট অফিসার।

বলা হচ্ছে, গত ৪ঠা সেপ্টেম্বর ঢাকার দারুস সালাম এলাকার একটি ফ্ল্যাট বাড়িতে জঙ্গী আস্তানা সন্দেহে চালানো র‍্যাবের অভিযানে নিহত জেএমবি সদস্য আবদুল্লাহ-র সঙ্গে সাব্বির ইমাম সম্পর্কিত ছিলেন।

র‍্যাব মুখপাত্র মুফতি মাহমুদ খান বলেন, আবদুল্লাহ ও সাব্বিরের আরেকটি পরিকল্পনা ছিল যাত্রীসহ একটি বিমানের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে তারা মধ্যপ্রাচ্যের কোন একটি দেশে তা অবতরণ করাবে।

এ ছাড়াও অন্য জঙ্গী সদস্যদের বিমান চালনার প্রশিক্ষণ দেবার পরিকল্পনাও তাদের ছিল বলে জানান মি. মাহমুদ।

তিনি বলেন, ২০১৪ সালে থেকে ইমাম বিমানে কর্মরত আছেন এবং বিদেশে উচ্চতর প্রশিক্ষণও নিয়েছেন।

পূর্ব পরিচয়ের সূত্রে আবদুল্লাহর সাথে তার ঘনিষ্ঠতা গড়ে ওঠে এবং এক পর্যায়ে তিনি জঙ্গীবাদের দিকে আকৃষ্ট হন, এবং এই কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়েন, বলেন তিনি।

সম্পর্কিত বিষয়