অক্টোবর বিপ্লব: জার নিকোলাসকে যেভাবে দেখে আজকের রাশিয়া

সপরিবারে জার দ্বিতীয় নিকোলাস

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

সপরিবারে জার দ্বিতীয় নিকোলাস

বিংশ শতাব্দীর ইতিহাসে সবচেয়ে যুগান্তকারী ঘটনাগুলোর একটি ছিল রুশ সমাজতান্ত্রিক বিপ্লব, যা রুশ বর্ষপঞ্জী অনুযায়ী অক্টোবর বিপ্লব নামেও পরিচিত।

এ বছর বিশ্বজুড়ে নানাভাবে পালিত হচ্ছে এই বিপ্লবের শততম বার্ষিকী। সমাজতন্ত্রের পতন এবং সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙ্গে যাওয়ার পর আজকের রাশিয়ায় অবশ্য এই অক্টোবর বিপ্লবকে মূল্যায়ন করা হয় ভিন্ন আলোকে।

রাশিয়ায় ১৯১৭ সালের অক্টোবর মাসে ভ্লদিমির ইলিচ লেনিনের নেতৃত্বে সশস্ত্র বিপ্লবের মধ্যে দিয়ে কম্যুনিস্ট বলশেভিকরা ক্ষমতা দখল করেছিল।

অক্টোবর বিপ্লবের কয়েক মাসের মধ্যেই বলশেভিকরা সপরিবারে হত্যা করে রাশিয়ার শেষ সম্রাট, জার দ্বিতীয় নিকোলাসকে। রাশিয়ার ইয়েকাতারিনবার্গ বলে যে জায়গায় এই হত্যাকান্ড ঘটেছিল, সেখানে গিয়েছিলেন বিবিসির স্টিভ রোজেনবার্গ।

রুশ বিপ্লবের শুরুতেই ইয়েকাতারিনবার্গের অর্থোডক্স গির্জায় ঘটেছিল সেই রক্তাক্ত ঘটনা, যে গির্জাকে বলা হয় 'চার্চ অন দ্য ব্লাড। ১৯১৮ সালে এখানেই হত্যা করা হয়েছিল জার দ্বিতীয় নিকোলাস, তার স্ত্রী, সন্তান এবং তাদের গৃহকর্মীদের। বলশেভিকরা গুলি করে এবং বেয়নেট চালিয়ে তাদের মৃত্যুদন্ড কার্যকর করে। এরপর তাদের মৃতদেহ একটি ট্রাকে করে শহরের বাইরে নিয়ে ফেলে দেয়া হয়।

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

ইয়েকাতারিনবার্গ-এর যেখানে জার নিকোলাসকে সপরিবারে ফায়ারিং স্কোয়াডে হত্যা করা হয় সেই 'চার্চ অন দ্য ব্লাড' নামের অর্থোডক্স গির্জা

ইয়েকাতারিনবার্গের উপকন্ঠে যেখানে জার দ্বিতীয় নিকোলাস এবং তার পরিবারের মৃতদেহ ফেলে দেয়া হয়েছিল বলে মনে করা হয়, সেই জায়গাটি এখন একটি ক্রুশ দিয়ে চিহ্ণিত করা।

১৯৯৮ সাল সেন্ট পিটার্সবার্গে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নিকোলাস, তার স্ত্রী আলেক্সান্দ্রা এবং তাদের তিন সন্তানকে নতুন করে সমাহিত করা হয়।

এর আগে অবশ্য ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত করা হয়েছিল যে ইয়েকাতারিনবার্গের উপকন্ঠে খুঁজে পাওয়া দেহাবশেষ আসলে জার নিকোলাস এবং তার পরিবারের সদস্যদের।

রাশিয়ার অর্থোডক্স চার্চ যদিও জার নিকোলাস এবং তার পরিবারের সদস্যদের সাধু বলে স্বীকৃতি দিয়েছে, তবে চার্চের মুখপাত্র মেট্রেপলিটন হিলারিয়ন বলছেন তারা আরও পরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত হতে চায় ইয়েকাতারিনবার্গের দেহাবশেষ আসলেই রাজপরিবারের সদস্যদের কীনা।

''এখন আরও আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে নতুন করে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। আমি ব্যক্তিগতভাবে বিশ্বাস করি এমন সম্ভাবনা প্রবল যে ইয়েকাতারিনবার্গে খুঁজে পাওয়া হাড়-গোড় যে রাজপরিবারের সদস্যদের, সেটাকে চার্চ স্বীকৃতি দেবে।''

জার দ্বিতীয় নিকোলাস ছিলেন একজন নিষ্ঠুর স্বৈরশাসক। যেভাবে তিনি দেশ শাসন করেছেন, তা নিয়ে অনেক প্রশ্ন এবং বিতর্ক আছে। কিন্তু আজকের রাশিয়া যেন তাকে ভিন্ন আলোতে দেখতে চাইছে।

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

সেন্ট পিটার্সবার্গে রুশ বিল্পবের শতবার্ষিকী উদযাপনে লাল আলোকসজ্জায় সাজানো হয়েছে রাষ্ট্রীয় যাদুঘরকে

বিবিসির স্টিভ রোজেনবার্গ বলছেন ইয়েকাতারিনবার্গের গির্জায় প্রার্থনা সঙ্গীতে জার নিকোলাসের প্রশংসা করা হচ্ছে।

গির্জায় গান করেন নাস্তিয়া। তিনি বলছিলেন তিনি জার নিকোলাসকে দেখেন ভিন্ন চোখে।

''আমি তাকে সবসময় একটি বড় জাহাজের ক্যাপ্টেন হিসেবে দেখি। রাশিয়া হচ্ছে বড় জাহাজ। জার নিকোলাস তার ক্যাপ্টেন। তিনি জীবনের শেষ পর্যন্ত এই বিরাট জাহাজের ক্যাপ্টেনের দায়িত্ব পালন করেছেন।''

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

রুশ বিপ্লবের শতবার্ষিকীতে লেনিনের মূর্তিতে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন

কিন্তু রাশিয়ায় আবারও রাজতন্ত্র ফিরে আসুক, সেটা ওখানে কেউই চান না। স্কুল শিক্ষিকা ওলগা বলছেন, তাদের আছে ভ্লাদিমির পুতিন, তাদের আরেকজন জার কেন প্রয়োজন?

''একজন জার যেভাবে রাশিয়া চালানোর চেষ্টা করতেন, আমাদের প্রেসিডেন্ট তো সেভাবেই দেশ চালাচ্ছেন। তো জারের প্রয়োজন কী?''

আজকের রাশিয়ার ছেলে-মেয়েরা যে নতুন ইতিহাসের পাঠ নিচ্ছে, তার সঙ্গে অক্টোবর বিপ্লব পরবর্তী ইতিহাসের ফারাকটা বিরাট।