কুষ্টিয়ার কুমারখালীর নারীদের ফসলের ক্ষেতে যেতে নিষেধ নেই

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ফসলের ক্ষেতে নারীদের যেতে নিষেধ করার পর আজ বুধবার থেকে আবারো যাওয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছে।
Image caption কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ফসলের ক্ষেতে নারীদের যেতে নিষেধ করার পর আজ বুধবার থেকে আবারো যাওয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছে।

বাংলাদেশের কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ফসলের ক্ষেতে নারীদের যেতে নিষেধ করার পর আজ বুধবার থেকে আবারো যাওয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছে।

কুমারখালী উপজেলার মসজিদ কমিটি থেকে শুক্রবার এই ঘোষণা দেয়ার পর মসজিদের ইমাম এবং সেক্রেটারিকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

কুমারখালী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহীনুজ্জামান বিবিসি বাংলাকে বলেন শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর মসজিদের মাইকে ঘোষণা করা হয় কোন নারী ফসলের ক্ষেতে যেতে পারবে না।

তিনি বলছিলেন কোন কোন নারী ফসলের ক্ষেতে শস্য চুরি করছিলেন এমন তথ্য দিয়ে ঐ ঘোষণা দেয়া হয়। কিন্তু সেটার ভিত্তিতে নারীদের মাঠে যাওয়া নিষেধ করাটাকে তিনি যুক্তিহীন মনে করেন।

কুষ্টিয়ার স্থানীয় সাংবাদিক তারিকুল হক বলছিলেন মসজিদ কমিটির বক্তব্য ছিল নারীরা মাঠে গেলে তাদের ভাষায় নানা ধরণের অপকর্ম এবং ফসল নষ্টের ঘটনা ঘটছিল।

তিনি বলছিলেন এটাকে গ্রামের অনেকেই ফতোয়ার মতই মনে করে ভয় পেয়েছে।

এরপর শুক্রবারের পর আর কোন নারীকে ফসলের ক্ষেতে দেখা যায়নি।

কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার মানুষের প্রধান জীবিকা কৃষিকাজ। সেখানে পুরুষের পাশাপাশি মহিলারাও কৃষিকাজ করে থাকেন।

একই সাথে গবাদি পশুর খাদ্য আনা, পুরুষদের খাবার নিয়ে যাওয়ার জন্য তাদেরকে ফসলের ক্ষেতে যেতেই হয়।

কুমারখালীর ইউএনও বলছিলেন তিনি এই খবর জানা মাত্র গ্রাম পুলিশ দিয়ে মসজিদের ইমাম এবং সেক্রেটারিকে গ্রেফতার করার নির্দেশ দেন।

আজ বুধবার থেকে নারীরা ফসলের ক্ষেতে যাচ্ছেন বলে তিনি জানান।

আরো পড়ুন:

হামলার আগে ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছিলেন আকায়েদ

চীনের এক সন্তান নীতি,কেটির বদলে যাওয়া জীবন

মাছি কতধরনের রোগ জীবাণু বহন করে

ভারতে টিভিতে কন্ডোমের বিজ্ঞাপন শুধু রাতে

সম্পর্কিত বিষয়