শিশুর ডিএনএ থেকে জানা গেল প্রথম আমেরিকানদের ইতিহাস

আপওয়ার্ড সান রিভার প্রত্নতাত্ত্বিক খনন কেন্দ্র। ছবির কপিরাইট Ben Potter
Image caption আপওয়ার্ড সান রিভার প্রত্নতাত্ত্বিক খনন কেন্দ্র।

আমেরিকা মহাদেশে মানুষের আগমন কিভাবে ঘটেছিল সে সম্পর্কে নতুন তথ্য পাওয়া গেছে।

আর সেটি এসেছে ১১,৫০০ বছর আগের এক কন্যা শিশুর মরদেহের ডিএনএ পরীক্ষা করে।

পরীক্ষার ফলাফল বিশ্লেষণ করে জানা যাচ্ছে, শিশুটি প্রাচীন এক নরগোষ্ঠীর সদস্য, যে গোষ্ঠীর পরিচয় সম্পর্কে আগে জানা যায়নি।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, এই ডিএনএ পরীক্ষা থেকে এখন জানা যাচ্ছে, ২০,০০০ বছর আগে সাইবেরিয়া থেকে এক ঝাঁক মানুষ প্রথমবারের মতো আমেরিকা মহাদেশে অভিবাসন করেছিলেন।

এশিয়া এবং আমেরিকার মাঝামাঝি বেরিং প্রণালীতে তখন সমুদ্রের গভীরতা কম ছিল এবং দুই মহাদেশের মধ্যে স্থলপথের যোগাযোগ ছিল বলে বিজ্ঞানীরা মনে করছেন।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়তে পারেন:

গণতন্ত্রে কী প্রভাব রাখলো ৫ই জানুয়ারি নির্বাচন

ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিষয়ে নতুন ১০ বিস্ফোরক তথ্য

বিকাশ ব্যবহার করে অর্থ পাচার হয় যেভাবে

অধ্যাপক এস্কে উইলারস্লেভ এবং তার গবেষক সঙ্গীরা মনে করেন, এরাই বর্তমানের নেটিভ আমেরিকানদের পূর্বপুরুষ।

ছয়-বছর বয়সী এই মেয়ে শিশুটির কঙ্কাল ২০১৩ সালে আপওয়ার্ড সান রিভার প্রত্নতাত্ত্বিক খননের জায়গায় খুঁজে পাওয়া যায়।

স্থানীয় আদিবাসীরা এই শিশুটির না দিয়েছে: 'শাচিতিয়ানেহ্ টিডেগে' অর্থাৎ শিশু কিরণময়ী।

ছবির কপিরাইট Eric.S.Carlson Illustration
Image caption শিল্পীর কল্পনায় আপওয়ার্ড সান রিভার এলাকায় প্রাচীন জনবসতি।

চিঠিপত্র: সম্পাদকের উত্তর