সিরিয়ায় কুর্দি অবস্থানগুলোর ওপর বোমা ফেলছে তুরস্ক

ছবির কপিরাইট AFP
Image caption তুর্কি যুদ্ধবিমানগুলো কুর্দি অবস্থানের ওপর বোমা ফেলতে শুরু করেছে

তুরস্ক উত্তর সিরিয়ার কুর্দি মিলিশিয়াদের বিরুদ্ধে সামরিক অভিযান শুরু করেছে। এর ফলে সিরিয়ার সাত বছরের সংঘাতে এখন আরও একটি যুদ্ধক্ষেত্র যোগ হলো।

তুরস্কের যুদ্ধবিমানগুলো সিরিয়ার আফরিন অঞ্চলে কুর্দি মিলিশিয়াদের অবস্থান লক্ষ্য করে বোমা বর্ষণ করেছে। গত কদিন ধরেই তুরস্ক সেখানে কুর্দি অবস্থানগুলোর ওপর কামানের গোলা বর্ষণ করছিল।

সিরিয়ার কুর্দি মিলিশিয়াদের বিরুদ্ধে তুরস্ক তাদের এই অভিযানের নাম দিয়েছে অপারেশন 'অলিভ ব্রাঞ্চ'। তুর্কী সেনাবাহিনী বলছে গ্রিনিচ মান সময় দুপুর দুটায় তাদের অভিযান শুরু হয়।

মূলত কুর্দি মিলিশিয়া গোষ্ঠী ওয়াইপিজি এবং জঙ্গী গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট তাদের এই অভিযানের লক্ষ্য।

সংবাদদাতারা জানাচ্ছেন, তুর্কী যুদ্ধ বিমানগুলো আফরিন অঞ্চলের কুর্দি অবস্থান লক্ষ্য করে বোমা হামলা চালাচ্ছে। কুর্দি গোষ্ঠী ওয়াইপিজি বলছে, কয়েকটি গ্রামে এবং আফরিন শহরে বিমান হামলা হয়েছে।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন:

রোহিঙ্গাদের জন্য স্থানীয়রাই এখন প্রচন্ড চাপে

কুর্দি যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে অভিযান 'শুরু হয়ে গেছে'

যৌন হয়রানির বিষয়ে কেন মুখ খোলেনা মেয়েরা?

ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption কয়েকদিন ধরেই তুরস্ক কুর্দি ওয়াইপিজির অবস্থানগুলোর ওপর গোলাবর্ষণ করছিল

এর আগে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেচেপ তাইয়িপ এরদোয়ানও কুর্দিদের বিরুদ্ধে তার দেশের স্থল অভিযান শুরু হয়েছে বলে ঘোষণা দেন।

তিনি সিরিয়ার এই কুর্দি মিলিশিয়াদেরকে সন্ত্রাসী বলে বর্ণনা করেন, এবং বলেন, এরা আসলে তুরস্কের ভেতর সক্রিয় বিদ্রোহী গোষ্ঠী পিকেকে-র অংশ।

তিনি আরও বলেন, পশ্চিম দিকে শুরু হওয়া এই অভিযান পরে উত্তর দিকে মনবিজ শহরকে টার্গেট করেও চালানো হবে, এবং কুর্দিদের পুরো করিডোরটি নিশ্চিহ্ন করে দেয়া হবে।

এদিকে রাশিয়া তুরস্কের এই অভিযানের ব্যাপারে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে এবং সব পক্ষের প্রতি সংযম দেখানোর জন্য আহ্বান জানিয়েছে।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরও এ ধরণের অভিযানে না যাওয়ার জন্য তুরস্কের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল।