হত্যাপ্রচেষ্টার দায়ে অভিযুক্ত হবার পর ভারতীয় দল থেকে বাদ শামি

ছবির কপিরাইট ফেসবুক/হাসিন জাহান
Image caption মোহাম্মদ শামি ও তার স্ত্রী হাসিন জাহান

ভারতের জাতীয় দলের নামী ক্রিকেটার মোহাম্মদ শামিকে হত্যাপ্রচেষ্টার এক মামলায় অভিযুক্ত করা হয়েছে। মি. শামির বিরুদ্ধে ওই অভিযোগ আানেন তারই স্ত্রী হাসিন জাহান।

ভারতের ক্রিকেট বোর্ড এ অভিযোগের পর মোহাম্মদ শামিকে জাতীয় দলের চুক্তিবদ্ধ খেলোয়াড়দের তালিকা থেকে বাদ দিয়েছে।

পুলিশ বলছে, ২৭ বছর বয়স্ক এই ফাস্ট বোলারের বিরুদ্ধে অভিযোগের মধ্যে রয়েছে পারিবারিক সহিংসতা, ধর্ষণ, হত্যার চেষ্টা এবং ভীতিপ্রদর্শনের মতো অপরাধ। এসব অভিযোগের জন্য ১০ বছর বা তারও বেশি কারাদন্ডের বিধান রয়েছে।

এর আগে তার বিরুদ্ধে অজস্র মেয়ের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক রাখার এবং বাড়িতে নির্যাতন চালানোর মারাত্মক অভিযোগ আনেন তার স্ত্রী হাসিন জাহান।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন:

বিবাহ-বহির্ভূত প্রেম, নির্যাতনে অভিযুক্ত ক্রিকেটার শামি

ভারতে মোহাম্মদ শামির স্ত্রীর পোশাক নিয়ে বিতর্ক

নিজের ফেসবুক পোস্টে তিনি এই অভিযোগের বিস্তারিত বিবরণ দিয়ে সেই সঙ্গে মহম্মদ শামির সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপে বিভিন্ন মেয়ের কথোপকথনের স্ক্রিনশট ও তাদের ছবিও প্রমাণ হিসেবে পেশ করেছেন।

মোহাম্মদ শামি এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, এটা তার বিরুদ্ধে এক বিরাট ষড়যন্ত্রের অংশ।

টেস্ট টি-২০ এবং ওডিআই- এই তিন ফর্ম্যাটেই মোট ৮৭ বার ভারতের জাতীয় ক্রিকেট দলের হয়ে খেলেছেন ফাস্ট বোলার মোহাম্মদ শামি।

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption মোহাম্মদ শামি

ভারতের একটি টেলিভিশন চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে হাসিন জাহান আরও জানিয়েছেন, তার ওপর মানসিক ও শারীরিক অত্যাচার এখন এই পর্যায়ে পৌঁছেছে যে স্বামীর বিরুদ্ধে আইনি রাস্তা নেওয়া ছাড়া তার আর কোনও উপায় নেই।

মোহাম্মদ শামিও বুধবার সকালে ফেসবুকে সংক্ষিপ্ত পোস্ট দিয়ে দাবি করেছেন তার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে যে সব খবর রটানো হচ্ছে তা সর্বেব মিথ্যা।

এগুলো তার 'চরিত্র হনন করার ষড়যন্ত্র' এবং তার 'খেলা খারাপ করার অপচেষ্টা' বলেও দাবি করেছেন মোহাম্মদ শামি।

তবে হাসিন জাহান অবশ্য তার অভিযোগ থেকে পিছু হঠবেন, এখনও এমন কোনও ইঙ্গিত দেননি। বরং তিনি জানাচ্ছেন, ভারতের সদ্যসমাপ্ত দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের পরও দেশে ফিরে মোহাম্মদ শামি তাকে মারধর করেছেন।

"ওর পরিবারের সবাই আমাকে নির্যাতন করত। শামির মা ও ভাই-ও আমার ওপর অত্যাচার চালাত, আর সেটা চলত রাত দুটো-তিনটে পর্যন্ত। ওরা আমাকে মেরেও ফেলতে চেয়েছিল", বলেছেন হাসিন জাহান।

পাশাপাশি যে সব মেয়ের সঙ্গে শামি সম্পর্ক রাখেন বলে তিনি দাবি করেছেন, তাদের অনেকের ছবি ও ফোন নম্বর পর্যন্ত তিনি সোশ্যাল মিডিয়াতে ফাঁস করে দিয়েছেন।

সঙ্গে দিয়েছেন ফেসবুক মেসেঞ্জার বা হোয়াটসঅ্যাপে তাদের সঙ্গে শামির একান্ত গোপনীয় কথাবার্তার স্ক্রিনশট।

হাসিন জাহান দাবি করেছেন, পাঁচ বছর আগে ২০১৩-র এপ্রিলে মোহাম্মদ শামির সঙ্গে যখন তার বিয়ে হয়, সে মাসেই তিনি স্বামীর এসব অবৈধ সম্পর্কের কথা জানতে পারেন।

কিন্তু এতদিন ধরে বুঝিয়ে-সুঝিয়েও তাকে সঠিক রাস্তায় ফেরানো সম্ভব হয়নি, বলেন হাসিন জাহান।

এর আগে ২০১৬র ডিসেম্বরে এই মোহাম্মদ শামির স্ত্রীর পোশাক নিয়ে ফেসবুক ও টুইটারে কিছু লোক বিরূপ মন্তব্য করার পর তিনি সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারীদের সমালোচনা করেছিলেন।

তখন মোহাম্মদ কাইফের মতো সাবেক বহু ক্রিকেটারও শামির সমর্থনে এগিয়ে এসেছিলেন।

উত্তরপ্রদেশের আমরোহার ছেলে শামি গত বেশ কয়েক বছর ধরে বাংলার হয়ে ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেট খেলছেন, সেই সুবাদে তিনি সপরিবারে কলকাতাতেই থাকেন।

এর আগেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট দুনিয়ায় বহু তারকার বিরুদ্ধেই বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্ক রাখার অভিযোগ উঠেছে।

সম্পর্কিত বিষয়