থাইল্যান্ডে জলাতঙ্ক: ১ কোটি কুকুর-বিড়ালের টিকা

রেবিস ভাইরাস সাধারণত বন্য পশুর দেহ থেকে মানুষে সংক্রমিত হয়। ছবির কপিরাইট Taylor Weidman
Image caption রেবিস ভাইরাস সাধারণত বন্য পশুর দেহ থেকে মানুষে সংক্রমিত হয়।

থাইল্যান্ডের বিভিন্ন শহরে পাগলা কুকুরের ভয়ে অস্থির হয়ে উঠেছেন বাসিন্দারা।

আর বেওয়ারিশ কুকুরের কামড়ে বহু মানুষের রেবিস বা জলাতঙ্ক হয়েছে। চলতি বছর প্রাণ হারিয়েছে তিন ব্যক্তি।

কর্তৃপক্ষ বলছে, রাজধানী ব্যাংককসহ সে দেশের ৪০টি প্রদেশে পরীক্ষা চালিয়ে বেওয়ারিশ কুকুরের দেহে তারা জলাতঙ্কের ভাইরাস সনাক্ত করেছেন।

রেবিস ভাইরাস সাধারণত বন্য পশুর দেহ থেকে মানুষে সংক্রমিত হয়।

প্রয়োজনীয় চিকিৎসা না হলে এতে মৃত্যুর ঝুঁকি থাকে।

তবে থাই কর্তৃপক্ষ বলছে, এই জলাতঙ্কের প্রাদুর্ভাব তাদের নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রয়েছে।

তারা সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে এক কোটি কুকুর ও বেড়ালকে জলাতঙ্কের টিকা দেয়ার পরিকল্পনা করছে।

থাই পানিসম্পদ বিভাগ বলছে, চলতি বছরের গোড়াতে জলাতঙ্কের ৪০০ ঘটনা সম্পর্কে তারা নিশ্চিত হয়েছে।

গত বছর একই সময়ে তুলনায় এই সংখ্যা দ্বিগুণ বলে তারা বলছে।

থাইল্যান্ডে রেবিসের প্রধান বাহক হচ্ছে কুকুর, কিন্তু বিড়াল এবং গরু থেকে এই জীবাণু ছড়াতে পারে।

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption ব্যাংককের রাস্তায় বেওয়ারিশ কুকুর।