৬০ রুশ কূটনীতিককে বহিষ্কার করছে যুক্তরাষ্ট্র

ক্রেমলিন ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption ক্রেমলিন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ঘোষণা করেছে যে, তারা ওয়াশিংটন ও নিউইয়র্ক থেকে ৬০ জন রুশ কূটনীতিককে বহিষ্কার করছে।

এছাড়া, ইউরোপীয় ইউনিয়নের ১৪টি দেশ রুশ কূটনীতিককে বের করে দেওয়ার কথা জানিয়েছে। জার্মানি, ফ্রান্স এবং পোল্যান্ড চারজন করে রুশ কূটনীতিককে বহিষ্কার করছে।

ইউক্রেন জানিয়েছে ব্রিটেনের প্রতি সমর্থন জানাতে তারা ১৩ জন রুশ কূটনীতিককে বহিষ্কার করছে।

রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাকারোভা ইউরোপীয় ইউনিয়নের তীব্র নিন্দা করে বলেছেন- ঘটনার বিকৃত ব্যাখ্যার ওপর ভর করে তারা ব্রিটেনকে এভাবে সমর্থন করছে।

তিন সপ্তাহ আগে ব্রিটেনে একজন সাবেক রুশ ডাবল এজেন্ট সেরগেই স্ক্রিপাল এবং তার মেয়ের ওপর নার্ভ এজেন্ট দিয়ে যে আক্রমণ হয় - তার প্রতিক্রিয়াতেই পশ্চিমা দেশগুলোর পক্ষ থেকে সমন্বিতভাবে এসব ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

যে ৬৪ জন রুশ কূটনীতিককে বহিষ্কার করা হচ্ছে, তাদের ৪৮ জন রুশ দূতাবাসে কাজ করেন। বাকিরা নিউইয়র্কে জাতিসংঘে রুশ দূতাবাসে কাজ করেন"।

রাশিয়া সবসময় ব্রিটেনে ঐ হত্যা চেষ্টার কথা অস্বীকার করেছে।

কিন্তু আমেরিকাসহ পশ্চিমা মিত্ররা ব্রিটেনের অভিযোগকেই সত্য হিসাবে গ্রহণ করেছে বলে মনে হচ্ছে।

মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের ঘোষণায় বলা হয়েছে, "চৌঠা মার্চ স্যালসবেরিতে রাশিয়া মিলিটারি গ্রেড নার্ভ এজেন্ট দিয়ে একজন ব্রিটিশ নাগরিক এবং তার কন্যাকে হত্যার চেষ্টা করে"।

"আমাদের একটি মিত্র দেশ ব্রিটেনে এই হামলা সেখানকার বহু নিরপরাধ মানুষের জীবন হুমকিতে ফেলে দেয়..."

বিবৃতিতে বলা হয় - ঐ হামলা ছিল রাসায়নিক অস্ত্র বিরোধী চুক্তি ভঙ্গের একটি নিদর্শন।