বল ট্যাম্পারিং: অস্ট্রেলিয়াতে কেমন প্রতিক্রিয়া? বিশ্বকাপে প্রভাব পড়বে?

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption স্টিভেন স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নার

বল ট্যাম্পারিংয়ের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ ও সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারকে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট বোর্ড।

নয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন বোলার ক্যামেরন ব্যানক্রফটও।

একইসাথে স্মিথকে আরো এক বছর অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়কত্ব থেকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

আর ওয়ার্নারকে কখনোই ক্যাপ্টেন হিসেবে বিবেচনা করা হবে না বলে জানিয়েছে দেশটির ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ স্মিথ ও ওয়ার্নার

আয়ারল্যান্ডের প্রথম নগ্ন সৈকত আসলে কেমন

আয়কর দিলে কি মুসলিমদের যাকাত দিতে হয়?

এ দু'জনকে বাদ দেয়া হয়েছে আইপিএল থেকেও।

আলোচিত ট্যাম্পারিংয়ের ঘটনা এবং এরপর ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে অস্ট্রেলিয়াতে কেমন প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে জানাতে চাইলে সেখানে থাকা সাংবাদিক হাসান তারিক বলছেন পুরো বিষয়টি নিয়ে একটি মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়াতে।

তিনি বলেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও বোর্ড আর খেলোয়াড়দের অফিসিয়াল পেজগুলোতে নানা ধরণের প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে।

"তবে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট ফ্যানরাই নয়, সাধারণ মানুষের মধ্যে বিষয়টা নিয়ে প্রতিক্রিয়া হয়েছে। বেশিরভাগ মানুষই কষ্ট পেয়েছে কারণ এটি দেশটির দ্বিতীয় জনপ্রিয় খেলা"।

ছবির কপিরাইট Sky sports
Image caption টিভি ক্যামেরায় এভাবেই ধরা পড়েছিলো যে ব্যানক্রফট কিছু একটা লুকাচ্ছেন

হাসান তারিক জানান যে কেউ কেউ বলছে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটের জন্য একটা অন্ধকারময় দিন।

অনেকে এটাকে জোচ্চরি উল্লেখ করে বলছে যে জাতি হিসেবে এটা লজ্জার।

আবার অনেকে বলছেন লঘু পাপে গুরু দণ্ড দেয়া হয়েছে কারণ ক্রিকেটে আগেও এটা হয়েছে।

কেউ কেউ বলছেন ডন ব্রাডম্যানের পর অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট সুসময়ে আছে।

আগামী বছর বিশ্বকাপে কোন প্রভাব ফেলবে?

বিশেষজ্ঞরা বলছেন বিশ্বকাপের আগে এ ধরণের একটা ঘটনা ও তার প্রেক্ষাপটে নেয়া সিদ্ধান্তের পর দলের মনোবল চাঙ্গা করার কথা ভাবতে হবে।

প্রধান কোচ ড্যারেন লেম্যান বলেছেন খেলোয়াড়রা ভুল করেছে কিন্তু তার মানে এই নয় যে তারা খারাপ মানুষ।

তিনি মিডিয়া ও সাধারণ মানুষের প্রতি আহবান জানিয়েছেন যে ভুলে গেলে চলবেনা যে এসব খেলোয়াড়ের অবদানের কথা।

বিজ্ঞাপনদাতাদের প্রতিক্রিয়া কি?

ধারণা করা হচ্ছে যে যেহেতু খেলোয়াড়রা নিষিদ্ধ হয়েছে সেহেতু বিজ্ঞাপন দাতারাও হয়তো তাদের নীতিতে পরিবর্তন আনবেন তখন এখনো এসব বিষয়ে কোন ঘোষণা আসেনি কোন পক্ষ থেকেই।

সম্পর্কিত বিষয়