এভারেস্টে ওঠা কি এতোই সহজ তার কাছে?

কামি রিতা শেরপা, ২১ বার উঠেছেন এভারেস্টের চূড়ায়

ছবির উৎস, Reuters

ছবির ক্যাপশান,

কামি রিতা শেরপা, ২১ বার উঠেছেন এভারেস্টের চূড়ায়

বেশিরভাগ মানুষের জন্যে তো বটেই, পর্বতারোহীদের জন্যেও, বিশ্বের সর্বোচ্চ পর্বতে আরোহণ করা এক রোমহর্ষক অভিজ্ঞতা। কারণ এসময় বহু অজানা চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হয়।

কিন্তু নেপালি পর্বতারোহী ৪৮ বছর বয়সী কামি রিতা শেরপার জন্যে বিষয়টি একেবারেই অন্যরকম।

আজ রবিবার তিনি মাউন্ট এভারেস্টের শীর্ষে সফলভাবে আরোহণের একটি রেকর্ড ভেঙে দিতে তার যাত্রা শুরু করেছেন। কিন্তু কি সেই রেকর্ড?

এখনও পর্যন্ত একজন পর্বতারোহী সর্বোচ্চ যতোবার মাউন্ট এভারেস্টের চূড়ায় সফল উঠতে সফল হয়েছেন, সেই সংখ্যাকে ছাড়িয়ে যেতে চান তিনি।

পরিসংখ্যান বলছে, বর্তমানের রেকর্ড ২১ বার। যৌথভাবে তিনজন নেপালি পর্বতারোহীর দখলে এই রেকর্ড। তাদের মধ্যে একজন কামি রিতাও।

কিন্তু তার বাকি দুই সহযাত্রী ইতোমধ্যে অবসর নিয়ে ফেলেছেন। এখন কামি রিতা যদি আরেকবার মাউন্ট এভারেস্টের চূড়ায় উঠতে সক্ষম হন তাহলে এই রেকর্ড চলে আসবে তার একার দখলে। তিনিই হয়ে উঠবেন বিশ্বের সবচেয়ে অভিজ্ঞ মাউন্ট এভারেস্ট আরোহী।

আরো পড়তে পারেন:

"নতুন ইতিহাস গড়তে আমি আরো একবার এভারেস্টে উঠতে যাচ্ছি, যাতে সকল শেরপা এবং আমার দেশ গর্ব করতে পারে," এ সপ্তাহের শুরুর দিকে একটি বার্তা সংস্থাকে একথা বলেছিলেন কামি রিতা শেরপা।

ছবির উৎস, Reuters

ছবির ক্যাপশান,

মাউন্ট এভারেস্ট যার উচ্চতা ২৯,০২৯ ফুট

কামি রিতা শেরপা প্রথমবারের মতো এভারেস্টের চূড়ায় উঠেছিলেন ১৯৯৪ সালে। আর শেষবারের মতো তার আরোহণ ছিলো গত বছরের মে মাসে। এর মধ্যে তিনি মাউন্ট এভারেস্টে উঠেছেন ২১ বার।

তিনি কাজ করছেন পর্বতারোহণ বিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রতিষ্ঠানে একজন গাইড হিসেবে। বিদেশি আরোহীরা সাধারণত তার মতো শেরপাদের গাইডের সহায়তা দিয়ে মাউন্ট এভারেস্টে তাদের অভিযান শুরু করেন।

এই সহায়তার জন্যে তাদেরকে অর্থ দেওয়া হয়। তাদের কাজ হলো উপরে উঠার পথ তৈরি করা, জায়গায় জায়গায় দড়ি বসানো যাতে ওই দড়ি ধরে আরোহীরা উপরের দিকে উঠতে পারেন, এবং আরোহীদের সাথে আরো যেসব জিনিস থাকে সেগুলো বহন করা।

এবার যে কামি রিতা মাউন্ট এভারেস্টে উঠতে যাচ্ছেন তাতে তিনি ২৯ সদস্যের একটি দলের নেতৃত্ব দেবেন।

এই দলে আছে জাপানি ও মার্কিন পর্বতারোহী। আজ রবিবার তারা বেজ ক্যাম্প থেকে রওনা দিচ্ছেন। আর পুরোদমে এই অভিযান শুরু হবে আরো দু'সপ্তাহ পর।

আর তারা কখন একেবারে শীর্ষে গিয়ে পৌঁছাতে সক্ষম হবেন সেটা নির্ভর করছে আবহাওয়ার উপর।

"সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আমরা চূড়ায় গিয়ে পৌঁছাবো ২৯শে মে।," কাঠমাণ্ডু পোস্টকে বলেছেন কামি রিতা শেরপা।

তবে তিনি বলেছেন, চূড়ায় উঠতে সফল হলেই শুধু তিনি আগের রেকর্ড ভাঙতে সক্ষম হবেন।

"এবার রেকর্ড করে ফেললেও আমি এভারেস্টে উঠা চালিয়ে যেতে চাই।"

কামি রিতা বলেছেন, তার লক্ষ্য ২৫ বার উঠা।

"আমি একটা ইতিহাস গড়তে চাই," বলেন কামি রিতা শেরপা।