বদলে গেছে এশিয়ার বৃহত্তম যৌন পল্লী সোনাগাছির চেহারা

সোনাগাছি রেড লাইট এলাকার একটি সাধারণ চিত্র ছবির কপিরাইট EPA
Image caption সোনাগাছি রেড লাইট এলাকার একটি সাধারণ চিত্র

ভারতে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের কলকাতা শহরের একটি যৌনপল্লী - সোনাগাছি। বলা হয়, এটি এশিয়ার সবচেয়ে বড় যৌনপল্লী বা রেড লাইট এলাকা। সম্প্রতি এর চেহারা অনেক বদলে গেছে।

এলাকাটিকে রঙিন করে তোলার চেষ্টা করছেন কয়েকজন ট্রান্সজেন্ডার শিল্পী। যৌনকর্মীদের বিভিন্ন ভবনের দেওয়ালে তারা রঙ তুলিতে ছবি এঁকে দিয়েছেন।

যৌনকর্মীদের একটি সমবায় সমিতির অফিস উপরের ভবনটি। তার গায়ে এই ম্যুরাল এঁকেছেন শিল্পীরা।

সোনাগাছি খুবই জীর্ণ একটি এলাকা। ভবনগুলোও পুরো। সরু সরু গলি চলে গেছে এদিকে ওদিকে। তার একপাশে হয়তো যৌনকর্মীদের বাড়িঘর আর অন্যপাশে আবাসিক ভবন।

বলা হয়, এই রেড লাইট এলাকায় দেহ বিক্রি করছে ১১ হাজারেরও বেশি যৌনকর্মী।

ছবির কপিরাইট EPA
Image caption সোনাগাছির একটি ভবনের ম্যুরাল, বদলে গেছে এলাকার চেহারা

এই এলাকার কিছু কিছু ভবনে ব্যাঙ্গালোর-ভিত্তিক একটি গ্রুপের সহযোগিতায় ট্রান্সজেন্ডার শিল্পীরা এসব ম্যুরাল এঁকেছেন। বলা হচ্ছে, যৌন কর্মীদের অধিকারের বিষয়ে তাদেরকে সচেতন করে তুলতেই এই কর্মসূচি। এর অন্যতম লক্ষ্য: নারীর বিরুদ্ধে সহিংসতা প্রতিরোধ।

এই ম্যুরালটি আঁকতে সময় লেগেছে এক সপ্তাহ।

আরো পড়ুন: কলকাতায় কীভাবে শুরু হয় যৌনকর্মীদের অধিকার আদায়ের আন্দোলন

ছবির কপিরাইট EPA
Image caption সোনাগাছির একটি প্রাচীর

এই এলাকার প্রাচীরগুলোকেও এভাবে রঙিন করে তোলা হয়েছে।

ছবির কপিরাইট EPA
Image caption সোনাগাছিতে যৌনকর্মীদের রঙিন বাড়িঘর

এখানে প্রতিদিন যাওয়া আসা করে বহু মানুষ। আসে খদ্দের ও দালাল। বাইরে থেকেও আসে ফেরিওয়ালারা। উপরের ছবিতে এরকমএকজন ফেরিওয়ালাকে তার ভ্যানে করে পণ্য বিক্রি করতে দেখা যাচ্ছে।

আয়োজকরা বলছেন, সোনাগাছির আরো কিছু ভবনে ছবি আঁকার পরিকল্পনা আছে শিল্পীদের।

ছবির কপিরাইট EPA
Image caption নানা রঙে রঙিন হয়ে উঠেছে যৌনকর্মীদের এলাকা

দেহব্যবসা ভারতে এখনও একটি বড় সমস্যা। ধারণা করা হয় সারা দেশে ৩০ লাখের মতো নারী এই যৌন ব্যবসার সাথে জড়িত আছেন।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়তে পারেন:

২৪ বছর পর নিখোঁজ মেয়ের সন্ধান যেভাবে পেল চীনা পরিবার

ভারতে সাংবাদিকরা ক্ষুব্ধ, একরাতেই 'ফেক নিউজ' নির্দেশিকা রদ

এইচএসসি পরীক্ষায় 'প্রশ্নফাঁস হবে না'

রোহিঙ্গা সহিংসতায় দায় স্বীকার করলো ফেসবুক

সম্পর্কিত বিষয়