এখনকার পরিস্থিতিকে 'স্নায়ুযুদ্ধের সময়ের চেয়েও খারাপ' বলছে রাশিয়া

ছবির কপিরাইট Sebastian Widmann
Image caption সের্গেই লাভরভ

রাশিয়া এবং পশ্চিমা দেশগুলো এখন 'স্নায়ুযুদ্ধের সময়ের চেয়েও খারাপ' এক পরিস্থিতির মুখোমুখি - বলেছেন রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রী সের্গেই লাভরভ ।

সিরিয়ার সরকারের বিরুদ্ধে রাসায়নিক গ্যাস ব্যবহারের অভিযোগ নিয়ে যখন রাসায়নিক অস্ত্র নিরোধ সম্পর্কিত আন্তর্জাতিক সংস্থার এক বৈঠকে রাশিয়া ও পশ্চিমা দেশগুলোর তীব্র বাদানুবাদ চলছে, তখন মিস্টার লাভরভ একথা বললেন।

বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, পরিস্থিতি এখন খুবই বিপদজনক পর্যায়ে পৌঁছেছে। তিনি সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন এবং ফ্রান্সের চালানো হামলাকে আগ্রাসন বলে বর্ণনা করেন।

সিরিয়ার দুমায় কথিত যে রাসায়নিক হামলার জবাবে পশ্চিমা দেশগুলোর ওই হামলা, তার পেছনে বাশার আসাদ সরকারের কোন হাত থাকার কথা তিনি অস্বীকার করেন।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন :

কোটা আন্দোলনের তিন নেতাকে ধরে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ

খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

ফেসবুকে গুজব রটনাকারীদের খুঁজছে পুলিশ

Image caption সিরিয়ার কিছু রাসায়নিক স্থাপনায় কয়েকদিন আগে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও ফ্রান্স

রাশিয়ার সঙ্গে পশ্চিমা দেশগুলোর মধ্যে নতুন স্নায়ু যুদ্ধের আশংকা নিয়ে কথাবার্তা হচ্ছে অনেকদিন ধরে। কিন্তু সম্প্রতি দু'পক্ষের সম্পর্কের যে মারাত্মক অবনতি ঘটেছে, তাতে সেই আশংকা এখন আরও জোরালো হয়ে উঠেছে।

ঠিক এরকম এক পটভূমিতে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রী সের্গেই লাভরভ বলেন, এর একটা প্রধান কারণ দুপক্ষের মধ্যে আলোচনা বা যোগাযোগের কোন চ্যানেল বা মাধ্যম না থাকা, যা স্নায়ুযুদ্ধের সময় ছিল। তিনি এজন্যে অবশ্য দায়ী করেন ব্রিটেন সহ পশ্চিমা দেশগুলিকে।

তিনি বলেন, রাশিয়া এখন পশ্চিমা দেশগুলোর ওপর যেটুকু আস্থা বা বিশ্বাস অবশিষ্ট ছিল, সেটাও হারিয়ে ফেলছে।

"আমরা আসলে আমাদের পশ্চিমা বন্ধুদের ওপর অবশিষ্ট বিশ্বাসও হারিয়ে ফেলেছি, বলছেন মিস্টার লাভরভ। তিনি বলেন, পশ্চিমা দেশগুলো খুবই অদ্ভুত কিছু যুক্তির ভিত্তিতে চলছে, তারা আগে শাস্তি দিয়ে দিচ্ছে, তারপর প্রমাণ খোঁজার জন্য তদন্ত করছে।"

তিনি বলেন, রুশ অর্থনীতি হয়তো নাজুক অবস্থার মধ্যে আছে, কিন্তু নতুন কোন মার্কিন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলেও তা মোকাবেলা করার সক্ষমতা তাদের আছে।