পৃথিবীর প্রথম পুরুষাঙ্গ ও অন্ডকোষ প্রতিস্থাপন করা হলো মার্কিন সৈন্যের দেহে

যুক্তরাষ্ট্র ছবির কপিরাইট JOHNS HOPKINS MEDICINE
Image caption সহকর্মীদের সাথে ডা. এ্যান্ড্রু লী (বাঁ থেকে দ্বিতীয়)

আফগানিস্তানে বোমা বিস্ফোরণে আহত এক মার্কিন সৈন্যের দেহে পুরুষাঙ্গ ও অন্ডকোষ প্রতিস্থাপন করা হয়েছে।

মেরিল্যান্ড রাজ্যের জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল শল্যচিকিৎসক এই অপারেশনটি করেন। তারা একজন মৃত দাতার পুরুষাঙ্গ, 'মুষ্ক' বা অন্ডকোষের থলি এবং তলপেটের কিছুটা অংশ প্রতিস্থাপন করেন ওই মার্কিন সৈন্যের দেহে।

ডাক্তাররা বলছেন, এ অস্ত্রোপচারের পর ওই সৈন্য যৌন-ক্ষমতা ফিরে পাবেন বলেই তারা মনে করছেন। তবে প্রতিস্থাপন না করে তারা যদি ক্ষতিগ্রস্ত পুরুষাঙ্গটি 'পুননির্মাণ' করতেন তাহলে ওই সৈন্যটির পক্ষে যৌন-ক্ষমতা ফিরে পাওয়া অসম্ভব হতো।

মার্চ মাসে এই অপারেশনটি হয় এবং তাতে ১৪ ঘন্টা সময় লাগে।

তবে ডাক্তাররা বলেছেন, নৈতিক বিবেচনা থেকে সৈন্যটির অন্ডকোষ দুটি প্রতিস্থাপন করা হয় নি।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন: ব্রিটেনে তারেক রাজনৈতিক আশ্রয়ে, বললো বিএনপি

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের প্রধান ড. এ্যান্ড্রু লী সোমবার এক সংবাদ ব্রিফিংএ বলেন, যুদ্ধে অনেক সময় লোকে এমন গুরুতর ভাবে আহত হন, যা তারা গোপন রাখেন, এবং তাদের জীবনে এর যে প্রভাব পড়ে তা অনেকেই উপলব্ধি করতে পারেন না।

তিনি আরো বলেন, যৌনাঙ্গের ক্ষতি হওয়াটা হচ্ছে যুদ্ধে আহত হবার এমন একটি দিক যা নিয়ে কথা বলা হয় না - অথচ তা মানুষের আত্মপরিচয়, মর্যাদাবোধ এবং সম্পর্কের ক্ষেত্রে গুরুতর প্রভাব ফেলে।

পৃথিবীর প্রথম পুরুষাঙ্গ প্রতিস্থাপন অপারেশন হয়েছিল ২০১৪ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায়।

বিবিসি বাংলায় আরও পড়ুন

লিঙ্গ প্রতিস্থাপন: অন্যের পুরুষাঙ্গ নিয়ে থমাসের নতুন জীবন

একজনের মুখ কেটে দু'বার বসানো হলো অন্যজনের মুখ