ফুটবলার মেসি: সবচেয়ে বেশি আয়ের ফুটবলার থেকে এবার ক্রীড়া পণ্যের ট্রেডমার্ক

ছবির কপিরাইট AFP
Image caption লিওনেল মেসি নিজের নাম ট্র্রেডমার্ক হিসেবে ব্যবহারের প্রশ্নে শেষপর্যন্ত আদালতের রায় পেয়েছেন

মেসি হচ্ছেন বিশ্বের সবচেয়ে বেশি আয় করা ফুটবলার। কিন্তু তার উপার্জন এখন আরও ফুলে-ফেঁপে উঠতে পারে এক দীর্ঘ আইনি লড়াইয়ে জয়ী হওয়ার পর।

লিওনেল মেসি এখন ক্রীড়া পণ্যে নিজের নাম ট্রেডমার্ক হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। ইউরোপের একটি আদালত এই মত দিয়েছে।

এ নিয়ে গত সাত বছর ধরে আইনি লড়াই চলছিল। সেই লড়াইয়ে মেসি জয়ী হলেন শেষপর্যন্ত।

বার্সেলোনা এবং আর্জেন্টিনার স্ট্রাইকার মেসি সাত বছর আগে আদালতে আবেদন করেছিলেন।

সেই আবেদনে তিনি ক্রীড় পণ্যে তাঁর নাম ব্যবহার ট্রেডমার্ক হিসেবে ব্যবহার করতে চেয়েছিলেন।

তাঁর আবেদন চ্যালেঞ্জ করেছিল স্প্যানিশ সাইক্লিং ব্র্যান্ড।

এই ব্র্যান্ডের নাম ম্যাসি। ইংরেজিতে যা লেখা হয় Massi এবং ফুটবলার মেসির নামের ইংরেজি বানান হচ্ছে Messi.

স্প্যানিশ ব্র্যান্ডের যুক্তি ছিল, দু'টি নাম একইরকম এবং ইংরেজি বানানও খুব কাছাকাছি। সে কারণে বিশ্বে পণ্যের ক্রেতাদের মাঝে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হতে পারে।

সাইক্লিং ব্র্যান্ডের যুক্তি আদালতে টেকেনি।

ইউরোপের আদালত মেসির পক্ষেই আদেশ দিয়েছে।

আদালতের এই আদেশ এমন সময়ে দেয়া হলো, যখন দু'দিন আগেই ফ্রান্স ফুটবল সাময়িকী বলেছে যে, বিশ্বে বর্তমানে সবচেয়ে বেশি আয় করা ফুটবলারের নাম মেসি।

তিনি আয়ের দিক থেকে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে ছাড়িয়ে গেছেন।

সাময়িকীটির হিসাব অনুযায়ী এই মৌসুমে মেসির আয় ১২ কোটি ৬০ লাখ ডলার।

মেসির আবেদনের নিস্পত্তি হতে সাত বছর সময় কেন লেগেছে?

লিওনেল মেসির আবেদেনটি নিয়ে ২০১১ সালে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ইনটেলেকচ্যুয়াল অফিস থেকে নেতিবাচক সিদ্ধান্ত এসেছিল।

তাঁর আবেদন চ্যালেঞ্জ করে স্প্যানিশ সাইক্লিং ব্র্যান্ড একই ধরণের নাম বা বানান কাছাকাছি হওয়ার যে বিষয়টি তুলেছিল, এই যুক্তি মেনে নিয়েছিল ইউরোপীয় ইউনিয়ন অফিস।

তারা ফুটবলার মেসির বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিল।

তবে ভিন্নমত পোষণ করে ইউরোপের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আদালত ফুটবলার মেসির পক্ষে অবস্থান নিয়েছে।

আইনী লড়াইয়েই এতটা সময় লেগেছে।

কিন্তু ফুটবলার মেসিই জয়ী হলেন।

এখন মেসি আর সময় নষ্ট না করে নিজেকে ট্রেডমার্ক হিসেবে ব্যবহার করবেন, এমনটাই ধারণা করছেন বিশ্লেষকরা।

সম্পর্কিত বিষয়