সাংবাদিকদের ওপর আক্রমণ দুনিয়া জুড়েই বাড়ছে

সাংবাদিক মিডিয়া ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption গোলাগুলির মধ্যে পড়ে মৃত্যুর চাইতে এখন পরিকল্পিত আক্রমণের শিকারই বেশি হচ্ছেন সাংবাদিকরা

সারা পৃথিবীতে ১৯৯০ সাল থেকে শুরু করে এ পর্যন্ত ২ হাজার ৫শরও বেশি সাংবাদিক নিহত হয়েছেন।

সাংবাদিকদের জন্য সবচেয়ে ভয়ংকর দিন ছিল সোমবার। সেদিন আফগানিস্তানে দুটি আক্রমণের ঘটনায় মোট ১০ জন সাংবাদিক ও ফটোগ্রাফারের মতো মিডিয়াকর্মী নিহত হন এক দিনেই।

আর সাংবাদিক ও মিডিয়াকর্মীদের অধিকারসংক্রান্ত গ্রুপগুলো বলছে, সাংবাদিকদের আক্রমণের লক্ষ্যবস্তু হবার ঘটনা ক্রমশ:ই বাড়ছে।

মে মাসের ৩ তারিখ বিশ্ব প্রেস ফ্রিডম ডে উপলক্ষে বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরে এ কথা বলছে সাংবাদিকদের আন্তর্জাতিক ফেডারেশন আইএফজে এবং অন্যান্য সংগঠন।

আইএফজে বলছে, ২০১৮ সালে এ পর্যন্ত মোট ৩২ জন সাংবাদিক নিহত হয়েছেন।

মিডিয়া অধিকার সংগঠনগুলো ১৯৯০এর দশক থেকে এ পর্যন্ত যে সাংবাদিকরা নিহত, আটক বা নিখোঁজ হয়েছেন তাদের ব্যাপারে তথ্য সংগ্রহ করছে। তাদের জরিপের মধ্যে মিডিয়া কর্মী, সাংবাদিকদের যোগাযোগকর্মী, অনুবাদক, গাড়িচালক - এরাও আছেন।

আইএফজে বলছে, গত এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে কম - ৮২ জন সাংবাদিকের মৃত্যু হয়েছে ২০১৭ সালে। এর মধ্যে মেক্সিকোতে ১৩ জন, আফগানিস্তানে ১২ জন, ইরাকে ১১ জন আর সিরিয়াতে ১০ জন নিহত হন। বাংলাদেশ নিহত হয়েছেন একজন।, ভারতে ৬ জন।

দু হাজার তিন সালে ইরাক যুদ্ধের সময় থেকে সাংবাদিক নিহতের সংখ্যা বেড়ে যায়। ২০০৬ সালে ১৫৫ জন আর ২০০৭ সালে ১৩৫ জন সাংবাদিক নিহত হন।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন:

প্রতিবেশীদের তুলনায় বাংলাদেশের সামরিক ব্যয়ের চিত্র

গুরগাঁওতে নামাজ পড়ার সময় 'জয় শ্রীরাম' বলে হামলা

'দিনে পাঁচবার যৌনমিলনও যথেষ্ট ছিল না'

'কোটা বাতিল নিয়ে কোন আফসোস থাকবে না'

ছবির কপিরাইট বিবিসি
Image caption গত বছর অর্থাৎ ২০১৭ সালে সবচেয়ে বেশি সাংবাদিক নিহত হয়েছেন মেক্সিকোতে

সিরিয়া এবং ইরাকে ইসলামিক স্টেট বা আইএসের উত্থানে পরও সাংবাদিকরা আক্রান্ত হয়েছেন শুধুই সাংবাদিক বলেই। কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টস সংগঠনের রবার্ট ম্যাহোনি বলেন, এই সাংবাদিকরা ক্রসফায়ারের বা গোলাগুলির মধ্যে পড়ে মারা যান নি, তাদের উদ্দেশ্যমূলকভাবে টার্গেট করা হয়েছে।

এ ছাড়া ২০১২ সালের পর কয়েকজন বিদেশী সাংবাদিকের অপহরণ এবং শিরশ্ছেদের ঘটনার পর সংবাদ প্রতিষ্ঠানগুলো বিপজ্জনক এলাকায় সংবাদদাতা পাঠানো কমিয়ে দেয়।

একারণে এই সময় থেকে স্থানীয় সাংবাদিকরাই বেশি আক্রমণের শিকার হয়েছেন।

যুদ্ধ চলছে না এমন দেশগুলোর মধ্যে সাংবাদিকদের জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক দেশ ছিল ফিলিপিনস, রাশিয়া এবং মেক্সিকো।

ছবির কপিরাইট আইএফজে
Image caption আইএফজের রিপোর্ট

আইএফজের কর্মকর্তা আর্নেস্ট সাগাগা বলছেন, আফগানিস্তান ও মেক্সিকোর সশস্ত্র গ্রুপগুলোর লক্ষ্য-উদ্দেশ্যে তফাৎ আছে - কিন্তু সাংবাদিকদের আক্রমণ ও দমনের ক্ষেত্রে তাদের নীতির কোন পার্থক্য নেই।

"কখনো কখনো তারা বন্দুকধারী বা খুনি ভাড়া করে, কিন্তু আসল ঘাতক, যে হত্যার নির্দেশ দিয়েছে সে সবসময়ই বিচারের বাইরে রয়ে যাচ্ছে।"

কারাবন্দী সাংবাদিকরা

গত প্রায় তিন দশকের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সাংবাদিক কারাবন্দী হয়েছেন ২০১৭ সালে - মোট ২৬২ জন।

সবচেয়ে বেশি সাংবাদিক কারাবন্দী হয়েছেন তুরস্কে ৭২ জন, চীনে ৪১ জন আর মিশরে ২০ জন।

সাংবাদিকদের মুখ বন্ধ রাখা এবং ভীতি প্রদর্শনের জন্য সবসময়ই তাদের জেলে পাঠানোকে একটা অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে - বলেন মি. সাগাগা।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন:

তিন কারণে গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় পিছিয়ে বাংলাদেশ

‘মোদীর আমলে ভারতের সংবাদমাধ্যম হুমকির মুখে'

সম্পর্কিত বিষয়