গাজীপুর নির্বাচন: বিএনপি নেতা নোমানকে আটক, পাঁচ ঘন্টা পর মুক্তি

ছবির কপিরাইট Facebook
Image caption বিএনপি নেতা আবদুল্লাহ আল নোমান

বাংলাদেশে বিরোধী দল বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমানকে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে প্রচারণায় অংশ নেয়ার সময় পুলিশ আটক করে। এরপর প্রায় পাঁচ ঘন্টা তাঁকে থানায় বসিয়ে রাখা হয়। রাত দশটায় তিনি মুক্তি পান।

গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাসেল শেখ বিবিসিকে জানিয়েছেন, যানবাহন ভাংচুর এবং প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির অভিযোগে তাঁকে আটক করা হয়।

কিন্তু আবদুল্লাহ আল নোমান বিবিসির কাছে অভিযোগ করেছেন, তিনি যখন গাজীপুরের নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীর বাড়িতে এক সংবাদ সম্মেলন করে সেখান থেকে ঢাকা ফিরছিলেন, তখন পুলিশ তাকে গাড়ি থেকে জোর করে তুলে নিয়ে যায়।

তিনি জানান এ সময় পুলিশ তাঁর সঙ্গে অসন্মানজনক আচরণ করে। থানায় তাঁকে প্রায় পাঁচ ঘন্টা বসিয়ে রাখা হয়। এরপর রাত দশটায় তিনি ছাড়া পান।

উল্লেখ্য গাজীপুরের সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন রোববারই হাইকোর্টের নির্দেশে ছয় মাসের জন্য স্থগিত হয়ে গেছে।

১৫ ই মে এই নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন যে সরকারী দল তাদের ভরাডুবি বুঝতে পেরে এই নির্বাচন করতে চাইছে না।

উল্লেখ্য গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন ভোটার সংখ্যার দিক থেকে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় পৌর কর্তৃপক্ষের একটি। এই নির্বাচনকে রাজনৈতিকভাবে বেশ গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছিল বিএনপি এবং আওয়ামী লীগ।