কেন বিক্রি হবে তুরস্কের প্রাচীন শহর

গবাদি পশুর চারণ ভূমি এখন অনেক স্থান ছবির কপিরাইট Image copyrightHURRIYET
Image caption গবাদি পশুর চারণ ভূমি এখন অনেক স্থান

আড়াই হাজার বছরের পুরনো তুরস্কের একটি শহরে বিক্রি করা হচ্ছে।

খবরে বলা, ধন সম্পদ শিকারিদের খপ্পর থেকে শহরটিকে বাঁচানোর জন্য এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

একই সাথে শহরটির আস্তে আস্তে ক্ষয়প্রাপ্ত হচ্ছে বিভিন্ন অংশ সেটা মেরামত করাও একটা দিক।

১৩৩ হেক্টর বা ৩৩০ একর জমির এই সম্পত্তি এখন ব্যক্তি-মালিকানায় রয়েছে। শহরটি প্রাচীন গ্রীসের বারগাইলিয়া।

এর মালিক এর দাম ৩৫ মিলিয়ন লিরা ঘোষণা করেছে বলে তুরস্কের হুরিয়াত নিউজপেপার খবর ছাপিয়েছে।

শহরটির থিয়েটার, প্রাচীন গ্রীসের নগরদুর্গ, মহল্লা এবং আরো গুরুত্বপূর্ণ ইমারাত যেগুলো গ্রেড ওয়ান প্রত্নতত্ত্ব নিদর্শন হিসেবে ধরা হয় সেগুলো এখন গবাদি পশুর চারণ ভূমিতে পরিণত হয়েছে।

ছবির কপিরাইট HURRIYET
Image caption প্রাচীন দামি অনেক মোজাইক চুরি হয়ে গেছে

বিশাল এক আশ্রম এখন পশুর থাকার জায়গা হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে।

এখানকার একজন মালিক হুসেইন ইউকপিনার বলেছেন তিনি একা এই প্রাচীন নগরীটি রক্ষা করতে পারছেন না,তাই এখন সরকারকে আওভান জানাচ্ছেন যাতে করে সরকার পদক্ষেপ নেয়।

ধন সম্পদ শিকারিদের খপ্পরে

প্রাচীন এই নগরীটি কোন তাৎপর্যপূর্ণ প্রত্নতাত্ত্বিক খননকাজ করা হয় নি।

আবার এটা এখন সম্পদ শিকারিদের নজরে রয়েছে।

ইতিমধ্যে রোমান সাম্রাজ্যের মোজাইক চুরি হয়েছে বলে খবর বের হয়েছে।

ছবির কপিরাইট HURRIYET
Image caption গ্রেড ওয়ান প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন হওয়ার পরেও কোন সরকার এটা রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব নেয় নি

এটা গ্রেড ওয়ান প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন হওয়ার পরেও কোন সরকার এটা রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব নেয় নি কারণ এটা ব্যক্তি মালিকানার অধীনে ছিল।

এবারই যে এই শহরটি বিক্রির চেষ্টা চলছে এমনটা নয়। ২০১৫ সালেও একবার বিক্রির চেষ্টা করা হয়েছিল।

আরো পড়ুন:

বিমান দেখলে ভয়ে 'বোমা' বলে চিৎকার করে যে শিশুরা

স্থানীয় আবাসন ব্যবসায়ীরা সেসময় চমকদার বিজ্ঞাপন দিয়েছিলেন শহরটির বর্ণনা দিয়ে।

কিন্তু কেও এগিয়ে আসেনি। তবে এবারে গত বারের মূল্যের তুলনায় দুই মিলিয়ন কম মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

সম্পর্কিত বিষয়