ভারত কি পারবে নগদ টাকা মুক্ত দেশে রূপান্তরিত হতে?

দেশকে নগদ টাকা মুক্ত করতে চায় ভারতের সরকার ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption দেশকে নগদ টাকা মুক্ত করতে চায় ভারতের সরকার

ভারতের সরকার দেড় বছর আগে পাঁচশো আর একহাজার রুপির নোট রাতারাতি বাতিল করে দিয়েছিল। দুর্নীতি আর কালোটাকা ঠেকানোর পাশাপাশি তাদের অন্যতম উদ্দেশ্য ছিল, ভারতকে একটি ক্যাশ লেস বা নগদ টাকাহীন সমাজে পরিবর্তিত করা। সেই উদ্দেশ্য কতটা সফল হচ্ছে?

কলকাতার টালিগঞ্জ ক্লাবে খুব সকালেই টেনিস খেলছেন বেশ কয়েকজন সদস্য। এই ক্লাবটি শহরের ধনী আর এলিটদের কাছে জনপ্রিয় একটি স্থান। আর এখানেই প্রতিদিন সকাল পাঁচটায় আসেন পিন্টু। তার উদ্দেশ্য এই সদস্যদের ব্যাগ বহন করে কিছু ডলার উপার্জন করা। ঠিক এই লোকদেরই ব্যাংকের হিসাব খুলতে উদ্বুদ্ধ করতে চান ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কিন্তু তিনি কি সেই হিসাব খুলেছেন?

পিন্টু বলছেন, ''আমি কখনোই কোন ব্যাংকে যাইনি। আমার ধারণাও নেই, তারা কিভাবে কাজ করে। কেন আমার টাকা আমি তাদের কাছে রাখতে যাবো? এটা আমার কাছে খুবই জটিল মনে হয়। আমি কখনোই ব্যাংকে হিসাব খুলতে চাই না। আমার কাছে ভালো লাগে না।''

কলকাতার একটি ব্যস্ত ফল আর সবজি বাজারে সবকিছুই নগদ টাকায় লেনদেন হচ্ছে। এখানে কোন কার্ড মেশিনও নেই।

আরও পড়ুন:

রুপি বাতিলের সিদ্ধান্তে বিরোধীদের ঐক্যবদ্ধ প্রতিবাদ

ভারতে অচল রুপি সঙ্কটে বেতন পেতে বহু মানুষের দুর্ভোগ

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption ভারতের এখনো বেশিরভাগ সাধারণ মানুষ কোন কার্ড ব্যবহার করেন না, তারা নগদ টাকার ওপর নির্ভরশীল

এই বাজারের একটি ব্যস্ততম দোকানের মালিক রাজা বলছিলেন, আমাদের এখানে ওসব চলে না। আমরা তো ছোটখাটো ব্যবসায়ী। এখানে যারা কেনাকাটা করতে আসেন, তারাও নগদ টাকাতেই কেনাকাটা করেন।

আঠারো মাস আগে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দুর্নীতি আর কালো টাকা দূর করতে রাতারাতি পাঁচশো আর একহাজার রুপির নোট বাতিল বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন। তবে সেই সঙ্গে তাদের আরো একটি উদ্দেশ্য ছিল, নগদ টাকাহীন একটি লেনদেন ব্যবস্থাও গড়ে তোলা।

ভারতের অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বলছেন, ''ভারতের অর্থনীতি ব্যাপকভাবে নগদ টাকার ওপর নির্ভরশীল। কিন্তু সেই চিত্র পাল্টানো দরকার। আমাদের অন্যতম উদ্দেশ্য ছিল সেটাই। আমাদের সেই উদ্যোগের পর সরাসরি কর প্রাপ্তির পরিমাণ কিন্তু এর মধ্যেই বাড়তে শুরু করেছে।''

সন্দেহ নেই, ভারতে লক্ষ লক্ষ্য লোক নগদ টাকা লেনদেন থেকে নিজেদের সরিয়ে নিতে পেরেছে, কিন্তু অনেক মানুষের পক্ষে এখনো সেটা সম্ভব হয়নি। তাহলে তাদের ক্ষেত্রে কি হবে?

Image caption ভারতের সরকার যে নগদ টাকাহীন লেনদেন ব্যবস্থা গড়ে তুলতে চাইছে, অনেকে তাকে অভ্যস্ত হয়ে উঠছেন

অর্থনীতিবিদ শাশ্বতী চৌধুরী বলছেন, ''এটাকে আপনি একটা মানসিক ব্যাপার বলতে পারেন যে, অনেক মানুষ কার্ড ব্যবহার করতে পছন্দ করে না। তারা আসলে এটা বুঝতে পারে না এবং ভয় পায় যে, ডেবিট কার্ড ব্যবহার করতে গিয়ে ঝামেলা হতে পারে। শিক্ষিত মানুষজনের মধ্যেই যদি এ ধরণের ভয় থাকে, তাহলে চিন্তা করে দেখুন অশিক্ষিত মানুষজনকে কিভাবে ক্যাশ লেস ব্যবস্থায় আনা সম্ভব?''

তাহলে কি ভারতের পক্ষে নগদ টাকার লেনদেন ব্যবস্থা থেকে সরে আসা সম্ভব? বাজারের ক্রেতারা কি মনে করছেন?

একজন ক্রেতা বলছেন, ''এটা এখনি সম্ভব বলে আমার মনে হয়না। কারণ এজন্য যথেষ্ট শিক্ষার দরকার আছে আর ভারতে সেটির এখনো অনেক অভাব রয়ে গেছে।''

আরেকজন ক্রেতা বলছিলেন, ''আমি মনে করি, তারা যে চেষ্টা করছেন, এটা খুবই মহতী একটি উদ্যোগ। কিন্তু আমি মনে করেন না, এক্ষেত্রে আমাদের কিছু করার আছে। কারণ এই পদ্ধতিটা অনেকদিন ধরে চলে আসছে, রাতারাতি আমাদের পক্ষে তা পাল্টানো সম্ভব নয়।''

একশো ত্রিশ কোটি জনসংখ্যার দেশ ভারতে কোন কিছুই পরিবর্তন রাতারাতি সম্ভব নয়। আর নগদ টাকার লেনদেন ব্যবস্থা থেকে সরে এসে ক্যাশ লেস বা নগদ টাকা হীন সমাজে পরিবর্তন হয়তো আরো কঠিন একটি বিষয়।