রোজার সময় মুসলিমদের ছুটি নিতে বলে বিপাকে ডেনিশ মন্ত্রী

ডেনমার্ক মুসলিম
ছবির ক্যাপশান,

ইনগার স্টোইবার্গ

'যে মুসলিমরা বাস চালান বা হাসপাতালে কাজ করেন - রমজানের সময় তাদের ছুটি নেয়া উচিত' - এমন এক মন্তব্য করে সমালোচনার মুখে পড়েছেন ডেনিশ অভিবাসন মন্ত্রী ইনগার স্টোইবার্গ।

কট্টর অভিবাসন নীতি প্রণয়নের জন্য আলোচনায় আসা এই মন্ত্রী বলেছেন, মুসলমানরা রোজা রেখে কাজ করলে তারা সমাজের বাকি অংশের জন্য নিরাপত্তা হুমকি তৈরি করতে পারেন।

তার কথা, "সারা দিন ধরে রোজা রেখে কাজ করলে আধুনিক সমাজের জন্য চ্যালেঞ্জ তৈরি হয়।"

মিজ স্টোইবার্গ বিশেষ করে বাসচালক এবং হাসপাতাল কর্মী হিসেবে যারা কাজ করেন তাদের কথা বলেন।

কিন্তু মন্ত্রীর এ কথার পর সবচেয়ে আগে জবাব দিয়েছে বাস কোম্পানিগুলোই। তারা বলছে, রমজান নিয়ে তাদের কোন সমস্যা নেই।

মিজ স্টোইবার্গ এক নিবন্ধে লিখেছিলেন, ডেনমার্কে যে মুসলিমরা রোজা রাখছেন তারা ১৮ ঘন্টা খাদ্য বা পানি খেতে পারবেন না। কিন্তু আধুনিক ডেনমার্কে কাজের সময় কখনো কখনো লম্বা হয়, এবং অনেক সময় বিপজ্জনক যন্ত্র চালাতে হয়।

"তাই" - মন্ত্রী লেখেন - "কোন বাস চালক যদি ১০ ঘন্টার বেশি সময় কিছু না খেয়ে থাকেন তাহলে নিরাপত্তা এবং উৎপাদনশীলতা ব্যহত হতে পারে।"

"তাই আমি আহ্বান জানাচ্ছি মুসলিমরা যেন রমজান মাসে কাজ থেকে ছুটি নেন - যাতে বাকি ডেনিশ সমাজের ওপর কোন নেতিবাচক প্রভাব না পড়ে," বলেন মিজ স্টোইবার্গ।

কিন্তু এর জবাবে আভিভা নামে একটি বাস পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠানের মুখপাত্র পিয়া হামারশোই স্প্লিটর্ফ একটি পত্রিকাকে বলেছেন, "রোজা রেখে বাস চালানোর সময় ড্রাইভার দুর্ঘটনা ঘটিয়েছেন এমন কখনো ঘটে নি। কাজেই এটা আমাদের জন্য কোন সমস্যা নয়।"

ডেনমার্কের ট্রান্সপোর্ট ইউনিয়নও বলেছে, মন্ত্রী কি এমন একটি সমস্যা সৃষ্টি করতে চাইছেন যার কোন অস্তিত্ব নেই?

ডেনমার্কের মুসলিম ইউনিয়ন সামাজিক মাধ্যমে একটি বার্তা দিয়ে মন্ত্রীকে ধন্যবাদ দিয়েছে তার উদ্বেগের জন্য। তার পর তারা বলছে, মুসলিমরা প্রাপ্ত বয়স্ক এবং এবং রোজা রাখার সময়েও তারা নিজেদের এবং সমাজের যত্ন নিতে সক্ষম।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন: