রাস্তায় পড়ে থাকা আহতদের পেছনে রেখে তোলা সেলফি নিয়ে ভারতে বিতর্কের ঝড়

বিতর্কের ঝড় তোলা সেই সেলফি ছবির কপিরাইট ANI
Image caption বিতর্কের ঝড় তোলা সেই সেলফি

ভারতের রাজস্থানে একটি পথ দুর্ঘটনায় গুরুতর জখম অবস্থায় পড়ে রয়েছেন তিন ব্যক্তি, আর একজন সেলফি তুলছেন - এরকম একটি ভিডিও ভাইরাল হয়ে গেছে।

ওই দুর্ঘটনায় আহত তিনজনই মারা গেছেন। পুলিশ বলছে, প্রত্যক্ষদর্শীদের কেউ কেউ যদি সেলফি না তুলে আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যেত, তাহলে হয়তো বেঁচে যেতেন তিনজনই।

বারমের জেলার চোহতান থানা এলাকার এই ঘটনা দুদিন আগের, তবে ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ায় সামাজিক মাধ্যম আর গণমাধ্যমে ব্যাপক কথাবার্তা হচ্ছে এখন।

চোহতান থানার অফিসার ইনচার্জ মনোহর বিশনোই বিবিসি বাংলাকে বলছিলেন, "মাট্টে কা তালাও নামের একটি গ্রামে ওই দুর্ঘটনা হয়। মৃত ব্যক্তিরা একটি মোটরসাইকেলে চেপে যাচ্ছিলেন।"

"সেই সময়ে একটি স্কুল বাসের সঙ্গে ধাক্কা লাগে তাদের বাইকটির। মাথায় চোট পান, প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। আশপাশে অনেকেই ছিলেন কিন্তু কেউ হাসপাতালে নিয়ে যান নি। একজন ব্যস্ত ছিল সেলফি তুলতে।"

পুলিশ যখন খবর পেয়ে পৌঁছয়, ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গেছে।

ঘটনাস্থলে একজন মারা যান, একজনের মৃত্যু হয় হাসাপাতালে। তৃতীয় ব্যক্তিকে বড় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময়ে তারও মৃত্যু হয়।

মি বিশনোই জানিয়েছেন, মৃত তিনজনেই গুজরাতের একটি কারখানায় শ্রমিক ছিলেন।

অন্য দিকে যে ব্যক্তি রক্তাক্ত দেহগুলির সামনে দাঁড়িয়ে সেলফি ভিডিও তুলছিলেন, তাকে এখনও শনাক্ত করা যায় নি।

কিন্তু শনাক্ত করা গেলেও আহত ব্যক্তিদের সামনে দাঁড়িয়ে সেলফি তোলার জন্য কোন আইনে অভিযোগ দায়ের করা যেতে পারে, তা স্পষ্ট নয় পুলিশের কাছে।

আমাদের পেজে আরও পড়ুন:

কেন আর কীভাবে খালেদা জিয়ার আইনজীবী লর্ড কার্লাইলকে বিমানবন্দর থেকে ফেরত পাঠাল ভারত?

চীন-মার্কিন বাণিজ্য যুদ্ধ: সঙ্কটের মুখে চীনা শিল্প?

'বিরিয়ানি নিয়ে যুদ্ধে' উত্তপ্ত ভারতের দুই রাজ্য

ছবির কপিরাইট বিবিসি বাংলা
Image caption ভারতের বহু সংরক্ষিত বনাঞ্চলেও সেলফি তোলা বারণ

"সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ আছে যে দুর্ঘটনায় আহতদের কেউ হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাকে প্রশ্ন বা জেরা করা হবে না। আমরা করিও না। কিন্তু এক্ষেত্রে সেলফি তোলার জন্য কী মামলা করব? কেউ যদি থানায় অজ্ঞাতপরিচয় সেই ব্যক্তির নামে অভিযোগ করত, তাও না হয় ব্যবস্থা নেওয়া যেত," বলছিলেন বিবিসি রেডিও অনুষ্ঠানগুলির নিয়মিত শ্রোতা এই পুলিশ অফিসার।

সেলফি তোলা নিয়ে ভারতীয়দের মাতামাতি অবশ্য নতুন নয়।

গত কয়েকবছরে বিপজ্জনক জায়গায় সেলফি তুলতে গিয়ে অনেকেই প্রাণ হারিয়েছেন। চলন্ত ট্রেনের পাশে দাঁড়িয়ে অথবা উত্তাল সমুদ্রের কিনারায় সেলফি তুলতে গিয়ে মারা যাওয়ার খবর মাঝে মাঝেই সংবাদে প্রকাশ পায়।

আবার এমনও দেখা গেছে যে কোনও বাড়িতে আগুন লেগেছে, অথচ তার সামনে দাঁড়িয়ে সেলফি তুলছেন কেউ কেউ।

মনোবিদরা সেলফি নিয়ে এই মাতামাতিকে এক ধরনের মনোরোগ বলেই চিহ্নিত করছেন।

যে কোনও অবস্থায়, যে কোনও পরিস্থিতিতে নিজের ছবি তুলে সামাজিক মাধ্যমে প্রচার পাওয়ার অদম্য আকাঙ্ক্ষা থেকেই বিপদের ঝুঁকি নিচ্ছেন মানুষ।

সেলফি-বিপদ নিয়ে মানুষকে সচেতন করতে অনেক রাজ্যেই পর্যটকস্থল বা বিপদসঙ্কুল জায়গায় সেলফি তোলার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

সেলফি তোলায় নিষেধাজ্ঞা রয়েছে সংরক্ষিত বনাঞ্চলগুলিতেও। এমনকী কলকাতা শহরে দুর্গাপুজোর অনেক মন্ডপেই সেলফি তোলা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

সম্পর্কিত বিষয়