নিরাপদ সড়ক: নর্থ সাউথ ও ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা

ঢাকার ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে কাঁদানে গ্যাস
Image caption ঢাকার ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে কাঁদানে গ্যাস

সোমবার দুপুরের দিকে ঢাকার বসুন্ধরা এলাকায় নিরাপদ সড়ক ইস্যুতে বিক্ষোভ মিছিল বের করা নিয়ে নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। ছাত্রদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ সেসময় কাঁদানে গ্যাস ব্যবহার করে।

এরপর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছেন, ছাত্র-ছাত্রীদের এসএমএস করে সিদ্ধান্ত জানানো হচ্ছে।

ওদিকে বাড্ডা এলাকায় ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ও দুদিনের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে এক ঘোষণায় বলা হয়েছে, অনিবার্য কারণে আগামি ৭ ও ৮ অগাস্ট বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকবে।

সকালের দিকে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের সাথে পুলিশ এবং ছাত্রলীগের সংঘর্ষ হয়।

আরও পড়ুন:

জিগাতলা-সায়েন্স ল্যাব 'ঠান্ডা', অশান্ত বাড্ডা

আইসিটি আইনে মামলায় শহীদুল আলম ৭ দিনের রিমান্ডে

জানা গেছে, সেখানে সরকারি দলের অঙ্গ সংগঠন ছাত্রলীগের বেশ কিছু সদস্য সকাল ১০টার দিকে ছাত্র-ছাত্রীদের ক্যাম্পাস ঢুকতে বাধা দিলে সংঘর্ষ শুরু হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছাত্র হৃদয় ইসলাম বিবিসিকে বলেছেন, ছাত্রলীগের ছেলেরা বেশ কিছু শিক্ষার্থীকে মারধর করে। ভাঙচুর করে।

পরে পুলিশ বেশ কয়েক দফা কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে।

বাস চাপায় দুজন শিক্ষার্থীর মৃত্যু কেন্দ্র করে সপ্তাহখানেক ধরে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা যে বিক্ষুব্ধ আন্দোলন করছিলো - তাতে রোববার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদেরও যোগ দিতে দেখা যায়।

আজ (সোমবার) রাস্তায় স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের দেখা না গেলেও, কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করার চেষ্টা করে। নিরাপদ সড়ক: নর্থ সাউথ ও ইস্ট-ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা

চিঠিপত্র: সম্পাদকের উত্তর