মইন আলিকে 'ওসামা' বলায় অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে তদন্ত হবে

ক্রিকেট ইংল্যান্ড অস্ট্রেলিয়া মুসলিম মইন আলি ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption মইন আলি

ইংলিশ ক্রিকেটার মইন আলি অভিযোগ করেছেন যে ২০১৫ সালের এ্যাশেজ সিরিজে অস্ট্রেলিয়ান একজন ক্রিকেটার তাকে 'ওসামা' বলে ডেকেছিলেন। এর পর অভিযোগের তদন্ত শুরু করতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট বোর্ড।

একত্রিশ বছর বয়স্ক মইন আলি তার প্রকাশিতব্য আত্মজীবনীতে এ অভিযোগ এনেছেন। ২০১৫ সালের ওই এ্যাশেজ সিরিজের স্বাগতিক দেশ ছিল ইংল্যান্ডে।

আত্মজীবনীর একটি অংশ লন্ডনের দি টাইমস পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে।

মইন আলি লিখেছেন, কার্ডিফে প্রথম টেস্ট চলার সময় ওই ঘটনা ঘটেছিল। মইন আলি সেই ম্যাচে ৭৭ রান করেন এবং ৫টি উইকেট নেন, এবং ইংল্যান্ড ১৬৯ রানে অস্ট্রেলিয়াকে হারায়।

টাইমস পত্রিকায় প্রকাশিত আত্মজীবনীর এক অংশে মইন আলি লিখেছেন, "মাঠে একজন অস্ট্রেলিয়ান খেলোয়াড় আমার দিকে ফিরে বললো, 'টেক দ্যাট, ওসামা (এটা খেলো তো দেখি ওসামা!)"

"আমি কি শুনলাম তা বিশ্বাস করতে পারছিলাম না।"

"আমার মনে আছে, আমি রেগে লাল হয়ে গেছিলাম। ক্রিকেট মাঠে আমার কখনো এত রাগ হয় নি।"

ছবির কপিরাইট Stu Forster
Image caption মইন আলি

"আমি দু'একজনকে বললাম যে খেলোয়াড়টি আমাকে কি বলেছে। আমার মনে হয় ট্রেভর বেইলিস (ইংল্যান্ড কোচ) নিশ্চয়ই ব্যাপারটা অস্ট্রেলিয়ান কোচ ড্যারেন লিম্যানের কাছে তুলেছিল।"

"লিম্যান খেলোয়াড়টিকে জিজ্ঞেস করলো 'তুমি কি মইনকে ওসামা বলেছো?' সে অস্বীকার করলো। বললো, 'না, আমি বলেছিলাম 'টেক দ্যাট ইউ পার্ট-টাইমার'।"

দৃশ্যত আল-কায়েদার সন্ত্রাসী নেতা ওসামা বিন লাদেনের প্রতি ইঙ্গিত করেই কথাটা বলা হয়েছিল।

মইন আলির জন্ম বার্মিংহ্যামে এবং তিনি পাকিস্তানি-ব্রিটিশ পরিবারে জন্ম নেয়া একজন মুসলিম।

সেই সিরিজে ইংল্যান্ড ৩-২ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে এ্যাশেজ পুনরুদ্ধার করে।

মইন আলির এ অভিযোগ প্রকাশের পর ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার একজন মুখপাত্র বলেন, "আমাদের সমাজে বা খেলায় এ ধরনের মন্তব্যের কোন স্থান নেই এবং এটা অগ্রহণযোগ্য। আমাদের দেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে হলে সুনির্দিষ্ট মূল্যবোধ ও আচরণবিধি মানতে হয়।"

তিনি আরো বলেন, তারা ব্যাপারটি অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে নিয়েছেন এবং জরুরি ভিত্তিতে ইসিবি-র (ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড) সাথে কথা বলা হচ্ছে যাতে কথিত ঘটনাটির আরো ব্যাখ্যা পাওয়া যায়।