টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট: টার্গেট যখন মাত্র ৬ রান

ক্রিকেট ছবির কপিরাইট STR
Image caption মিয়ানমারের একটি ক্রিকেট দল

বিশ্ব ক্রিকেট এখন দিন গুণছে কবে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ৩০০ রান উঠবে। আর ওয়ানডে ক্রিকেটে ৫০০ রান।

ঠিক সেসময় যদি লক্ষ্যমাত্রা হয় মাত্র ছয় রান - সেটি একটু অবাক করার মতোই বিষয়।

অবিশ্বাস্য হলেও গতকাল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এশিয়ার আঞ্চলিক বাছাইপর্বের ম্যাচে মালয়েশিয়া ও মিয়ানমারের মধ্যেকার ম্যাচটিতে এমনটা ঘটেছে।

টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে মিয়ানমার ১০.১ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ৯ রান তুলতে সমর্থ হয়।

মিয়ানমার দলের ছয় ব্যাটসম্যানই শুন্য (০) রানে আউট হয়ে সাজঘরে ফিরে যান। ওয়াই কে কো অং ১২ বল থেকে সর্বোচ্চ ৩ রান সংগ্রহ করেন। দলীয় নয় রানের মধ্যে তিন রানই লেগবাই থেকে।

মালয়েশিয়ার পক্ষে বাঁহাতি স্পিনার পবন দ্বীপ সিং ৪ ওভার বল করে ১ রান দিয়ে ৫টি উইকেট নেন।

পরে বৃষ্টির কারণে মালয়েশিয়ার সামনে টার্গেট দেওয়া হয় মাত্র ৬ রান। ওভার বেঁধে দেওয়া হয় ৮টি।

সেই রান আবার মাত্র ১০ বলে তুলে ফেলে মালয়েশিয়া। ৩৮ বল হাতে রেখেই ৮ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় মালয়েশিয়া।

আরো পড়ুন:

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশ দল: পরীক্ষা-নিরীক্ষা নাকি শক্তিমত্তা?

বিয়েকে না বলে ১০ নম্বর জার্সি পরে মাঠ মাতাচ্ছেন যিনি

বাংলাদেশ কেন টি২০ ক্রিকেট রপ্ত করতে পারছে না?

আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপের এশিয়া অঞ্চলের বাছাই পর্বের এই ম্যাচটি গতকাল কুয়ালালামপুরে অনুষ্ঠিত হয়।

তবে টি-টোয়েন্টির স্ট্যাটাস না পাওয়াতে এই রেকর্ড নথিভুক্ত হবে না।

আর্ন্তজাতিক ক্রিকেটে সর্বনিন্ম ও সর্বোচ্চ স্কোর

আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বনিম্ন স্কোর নেদারল্যান্ডসের। ২০১৪ সালে বাংলাদেশের চট্টগ্রামে নেদারল্যান্ডস শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩৯ রানে অলআউট হয়ে যায়।

আবার শ্রীলঙ্কার হাতে রয়েছে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডও। যেটা কেনিয়ার বিপক্ষে ২৬৫।

ওয়ানডে ক্রিকেটে সর্বনিম্ন ইনিংসও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জিম্বাবুয়ের। ২০০৪ সালে ৩৫ রানে অলআউট হয়ে যায় দলটি।

আর ওয়ানডে ক্রিকেটে বর্তমান সর্বোচ্চ সংগ্রহ ইংল্যান্ডের ৪৮১। গত কয়েক বছরের ক্রিকেটের বিবর্তনে খুব দ্রুতই এই রেকর্ড নতুন করে লেখা হচ্ছে নিয়মিত।

সম্পর্কিত বিষয়

চিঠিপত্র: সম্পাদকের উত্তর