সংলাপ: শেখ হাসিনা এবার বিকল্পধারাকে আমন্ত্রণ জানালেন

ছবির কপিরাইট BBC BANGLA
Image caption সাবেক রাষ্ট্রপতি এবং বিকল্প ধারা প্রধান বদরুদ্দোজা চৌধুরী।

বাংলাদেশে ড: কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট-এর সাথে সংলাপে বাসার ঘোষণা দেবার একদিন পরেই সাবেক রাষ্ট্রপতি একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর বিকল্প ধারা বাংলাদেশকেও সংলাপে আমন্ত্রণ জানিয়েছে সরকার।

জাতীয় ঐক্য-ফ্রন্ট-এর সাথে সংলাপ অনুষ্ঠিত হবার কথা রয়েছে আগামীকাল বৃহস্পতিবার।

এরপর দিন অর্থাৎ শুক্রবার সন্ধ্যায় বিকল্প ধারার সাথে আলোচনায় বসবেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা।

এর আগে সংলাপে বসার আগ্রহ জানিয়ে বিকল্প ধারার তরফ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছিল।

শেখ হাসিনা কি সংলাপে পূর্বশর্ত জুড়ে দিলেন?

খালেদা জিয়া কি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন?

যে দুটি ইস্যুতে হোঁচট খেতে পারে সংলাপ

সে চিঠি পাঠানোর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই আওয়ামী লীগের তরফ থেকে পাল্টা আরেকটি আমন্ত্রণ পত্র নিয়ে বদরুদ্দোজা চৌধুরীর বাসায় যাওয়া হয়।

আওয়ামী লীগ নেতা ড. হাসান মাহমুদ সে চিঠি নিয়ে বদরুদ্দোজা চৌধুরীর বাসায় যান। সে চিঠিতে সংবিধান সম্মত সব বিষয় নিয়ে আলোচনার কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে সংলাপের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে চিঠি দিয়ে আলোচনায় বসার আগ্রহ প্রকাশ করেন বদরুদ্দোজা চৌধুরী।

ড: কামাল হোসেনের যখন জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া শুরু করেন, সে সময় প্রথম দিকে বিকল্পধারা বাংলাদেশ তাদের সাথে ছিল।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত বিভিন্ন শর্ত নিয়ে বনিবনা না হওয়ায় বিকল্প ধারা জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগ দেয়নি।

ছবির কপিরাইট Getty Images/BBC
Image caption ১লা নভেম্বর বৃহস্পতিবার ঐক্যফন্ট্রের নেতাদের গণভবনে সংলাপের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এদিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের শরিক জাতীয় পার্টিও প্রধানমন্ত্রীর সাথে সংলাপে বসার আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

গত সোমবার বিকেলে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল এক সংবাদ সম্মেলনে আকস্মিকভাবে জাতীয় ঐক্য-ফ্রন্ট-এর সাথে সংলাপে বসার ঘোষণা দেন।

এর আগের দিন জাতীয় ঐক্য-ফ্রন্ট-এর তরফ থেকে ড: কামাল হোসেন আলোচনার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে চিঠি দেন।

সে চিঠি দেবার ২৪ ঘণ্টারও কম সময়ের মধ্যে সরকারের তরফ থেকে সংলাপে বসার ঘোষণা দেয়া হলো।

এতো দ্রুত সময়ের মধ্যে সংলাপে বসতে রাজী হওয়ায় সরকারী সিদ্ধান্তে কিছুটা বিস্মিতই হয়েছেন বিরোধী নেতারা।

সাত-সকালে সরকারের আমন্ত্রণ: সংলাপ বৃহস্পতিবার