সংসদ নির্বাচন: নির্বাচন আয়োজনকে 'সফল' বলে মনে করছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার

সিইসি কেএম নুরুল হুদা
Image caption সিইসি কেএম নুরুল হুদা নির্বাচনকে পুরোপুরি সুষ্ঠু বলে দাবি করেছেন।

বাংলাদেশে বিরোধী জোট নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করে পূনরায় নির্বাচন আয়োজনের দাবি তোলার পর প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, যে নির্বাচন হয়েছে তা নতুন করে করার আর কোন সুযোগ নেই।

আজ ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, "আমরা নতুন করে নির্বাচন করবো না"।

নির্বাচনের কারচুপি সংক্রান্ত বিরোধী জোটের তোলা সব অভিযোগ তিনি নাকচ করে দিয়েছেন। সিইসি এই নির্বাচনকে পুরোপুরি সুষ্ঠু বলে দাবি করেছেন।

প্রধান দুটি বড় দলের মধ্যে ভোটের এত ব্যাপক পার্থক্য কিভাবে হল, সাংবাদিকদের এমন একটি প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, "জনগণ ভোট দিয়েছে যেভাবে, সেভাবে ভোট হয়েছে। ভোট তো আর আমরা দেই নাই।"

আরো পড়ুন:

সংবাদ সম্মেলনে যা বললেন ঐক্য ফ্রন্টের নেতৃবৃন্দ

'নির্বাচন ছিল তামাশা, প্রতিপক্ষ ছিল রাষ্ট্রযন্ত্র'

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কিছু তথ্য উপাত্ত তুলে ধরে বলেন, এই নির্বাচনে মোট ভোটারের ৮০ শতাংশের মতো ভোট দিয়েছেন।

ছবির কপিরাইট PMO
Image caption বিরোধী জোট নির্বাচনের ফল প্রত্যাহার করেছে।

ভোট গ্রহণের আগের রাতে অনেক কেন্দ্রে বাক্সে ব্যালট ভরে রাখা হয়েছে এমন অভিযোগের জবাবে মি. হুদা বলেন, "এটি সম্পূর্ণ অসত্য কথা।"

বিবিসির একজন সংবাদদাতা চট্টগ্রামে একটি কেন্দ্রে ভোট শুরুর দশ মিনিট আগে সকাল ৭:৫০ মিনিটে ব্যালট ভর্তি ব্যালট বাক্স দেখতে পান এবং এর ভিডিও করেন।

এমন কিছু অভিযোগের কথাউল্লেখ করে সাংবাদিকরা বিষয়টি নির্বাচন কমিশনের জন্য লজ্জার কোন বিষয় কিনা তা জানতে চাইলে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, "না এটা লজ্জার কোন বিষয় না। দুই একটা বিচ্ছিন্ন কোন ঘটনা থাকলে তা আমরা তদন্ত কর দেখবো।"

দুপুরের খাবারের বিরতির কথা বলে অনেক ভোট গ্রহণ কেন্দ্র বন্ধ রাখার অভিযোগ সম্পর্কে সিইসি বলেন, "এটা দেখতে হবে। আমাদের নলেজে নাই। প্রথম শুনলাম। এমন তো করার কথা না। বিরতিহীনভাবে ভোট চলবে।"

তিনি আরও বলেছেন, "অনিয়মের কোন অভিযোগ পাইনি এখনো। আমাদের হাতে এখনো আসেনি। অভিযোগ আসলে তদন্ত করে দেখবো। কিন্তু লিখিত অভিযোগ একটাও আসে নাই।"

এই নির্বাচনকে পুরোপুরি সফল বলে দাবি করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার।

তবে এই নির্বাচনকে ইতিমধ্যেই প্রত্যাখ্যান করেছে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

মি. হুদা অবশ্য বলেছেন যে এমন একটি নির্বাচনের আয়োজন করে তিনি "অতৃপ্ত না"।

অন্যান্য খবর:

পরিচালক মৃণাল সেনকে কেন মানুষ মনে রাখবে?

কেন যৌন বিকৃতির কারণ হয়ে উঠছে স্মার্টফোন