বাংলাদেশের বাগেরহাটের যে নারী এখন পুরুষ ফুটবল দলের কোচ

ছবির কপিরাইট Minora Khatun
Image caption পুরুষ ফুটবল দলের সাথে নারী কোচ মিনোরা খাতুন

বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়নশিপ লিগের একটি দল ঢাকা সিটি এফসির কোচ হয়েছেন সাবেক নারী ফুটবলার মিরোনা খাতুন।

বাংলাদেশে এই প্রথম কোনো পুরুষ ফুটবল দলের কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন কোনো নারী।

ঢাকা সিটি এফসি চ্যাম্পিয়নশিপ লিগের একটি নতুন ক্লাব যেটি নৌবাহিনীর সহযোগিতায় গড়ে উঠেছে।

মূলত তার এএফসি কোচিং লাইসেন্সের কারণেই চাকরিটা পাওয়া।

ঢাকা সিটি এফসির প্রধান কোচ আবু নোমান নান্নু সি লাইসেন্সধারী। কিন্তু চ্যাম্পিয়নশিপ লিগে শর্ত ন্যুনতম এএফসির বি লাইসেন্সধারী হতে হবে।

২০১৮ সালের ২৪শে ডিসেম্বর থেকেই নিয়মিত অনুশীলন করান মিরোনা।

বিবিসি বাংলা মিরোনা খাতুনের সাথে কথা বলে তার কাছে প্রশ্ন রাখা হয় কতটা চ্যালেঞ্জিং এই কাজ?

"আমি ডিসেম্বর মাসের ২৪ তারিখ যোগ দেই, আমি যখন জানতে পারি আমি খুবই অবাক হই, কখনো ভাবিনি এমন হবে" উচ্ছাস প্রকাশ করেন মিরোনা।

বিবিসি বাংলায় আরও পড়ুন:

বিশাল জনসমাগম দিয়ে যাত্রা শুরু প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর

মায়ের টাকা চুরি করে ব্যবসায় নেমেছিলেন যিনি

গরুর দুধে রাসায়নিক ঠেকাতে কী করছে সরকার?

নিজের কোচিং ক্যারিয়ারের পেছনে বাংলাদেশের মেয়েদের ফুটবলের উন্নতিকে মূলমন্ত্র ভাবেন মিরোনা।

"আসলে আমরা খেলাধুলায় মেয়েরা এখন অনেক এগিয়ে, কোচিংয়ে মেয়েরা আসছি আমরা, আমার কোনো বাধ্যবাধকতা নেই, কোনো সংকোচ নেই।"

ছেলেদের দলে কোচিং করানোতে দলের ফুটবলারদের প্রতিক্রিয়া কেমন জানতে চাওয়া হয় তার কাছে।

তিনি বলেন, "এখানে আমাকে নিয়োগ দিয়েছেন ক্লাব কর্তারা ও নৌবাহিনীর কর্তারা, তাই এখানে আমি সম্পূর্ণ স্বাধীন এবং ছেলেরা আমাকে খুব সম্মান করে।"

মিরোনা খাতুনের দাবি নারী ফুটবলের উন্নতির কারণেই এই ভাবে তিনি যোগ দিতে পেরেছেন কোচিংয়ে। তার আশা চ্যাম্পিয়নশিপ লিগ থেকে উত্তীর্ণ হয়ে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে কোচিং করানো।

বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়নশিপ লিগে জয় দিয়ে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে দলকে খেলাতে চান মিরোনা খাতুন।

মিরোনা ২০০৯ সালে প্রথম ফুটবল খেলেন, এরপর অ্যাথলেটিক্সেও সফলতা পান তিনি।

জাতীয় প্রতিযোগিতায় ১৩টি স্বর্ণপদক জিতেছেন বাগেরহাট থেকে উঠে আসা মিরোনা।

অন্যান্য খবর: কুকুর বিড়ালকে একটানা বেধে রাখলে জেল

আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না
প্রথা ভেঙ্গে সফল যে নারী

সম্পর্কিত বিষয়