জাপানে তিমির সাথে ধাক্কা লেগে ফেরির ৮০ জন যাত্রী আহত

হাম্পব্যাক জাতের তিমি
Image caption জাপান সাগরে মিঙ্কি এবং হাম্পব্যাক জাতের তিমি যাতায়াত করে

জাপানে সাগরে যাত্রী পারাপারের সময় একটি ফেরি অজানা প্রাণীর সঙ্গে ধাক্কা লেগে অন্তত ৮০ জন যাত্রী আহত হয়েছেন। পরে জানা যায় অজানা প্রাণীটি ছিল একটি তিমি।

নীগাটা বন্দর থেকে দ্রুত গতি সম্পন্ন হাইড্রোফয়েল জাহাজটি শনিবার স্যাদো আইল্যান্ডে ফিরছিল।

এই গিংগা ফেরি সার্ভিসটি পরিচালনা করে স্যাদো স্টিম শিপ কোম্পানি।

তারা জানিয়েছে, ঘটনাটির পর নিজে থেকেই ফেরিটি তার গন্তব্যে পৌছাতে সক্ষম হয়, যদিও নির্ধারিত সময়ের চেয়ে এক ঘণ্টা দেরী হয়েছে।

দুর্ঘটনায় আহতের হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

কোস্ট গার্ড বলছে যে, তাদের মধ্যে অন্তত ১৩ জন গুরুতর আঘাত পেয়েছে যদিও তাদের জ্ঞান হারাননি।

সে সময় জাহাজে ২১২ জন যাত্রী এবং চারজন ক্রু ছিলেন।

Image caption তিমির সাথে সংঘর্ষে জাহাজটির হাইড্রোফয়েল উইং এর একটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে

ফেরিটির চালক বলছেন যে, সমুদ্রযানটি কোন একটা কিছুকে আঘাত করে, যার ফলে জাহাজের স্টার্নে ১৫ সেন্টিমিটারের ছয় ইঞ্চি একটি ফাটল তৈরি হয়।

জাতীয় গণমাধ্যম এনএইচকে একজন মেরিন এক্সপার্টের বরাত দিয়ে বলছে যে, ক্ষতির পরিমাণ দেখে মনে হচ্ছে জাহাজটির একটি তিমির সাথে ধাক্কা লেগেছিল।

এক বিবৃতিতে, ফেরি চালক যাত্রীদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে বলেছেন যে জাহাজটির কোনো একটি সামুদ্রিক জীবের সাথে সংঘর্ষ ঘটেছে।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমকে ফেরিটির একজন যাত্রী বলেছেন, "সামনের সিটের সাথে গিয়ে আমার ঠোঁটে আঘাত লাগে। আশেপাশের সব যাত্রীই তখন ব্যথায় কাতরাচ্ছিল।"

জাহাজটি জেট ইঞ্জিনের সাহায্যে ঘণ্টায় ৮০ কিলোমিটার গতিতে চলতে পারে। তিমির সাথে সংঘর্ষে জাহাজটির হাইড্রোফয়েল উইং এর একটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বছরের এ সময়টিতে জাপান সাগরের এই অঞ্চলে মিঙ্কি এবং হাম্পব্যাক জাতের তিমি ঘনঘন যাতায়াত করে থাকে।

সম্পর্কিত বিষয়