গোলান মালভূমির ওপর 'ইসরায়েলের সার্বভৌমত্বকে' ট্রাম্পের স্বীকৃতির তাৎপর্য কি?

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption গোলান মালভুমি

গোলান মালভূমির ওপর ইসরায়েলের সার্বভৌমত্বকে স্বীকৃতি দিয়ে এক ঘোষণায় স্বাক্ষর করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

১৯৬৭ সালের আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের সময় ইসরায়েল এই জায়গাটি সিরিয়ার কাছ থেকে দখল করে নিয়েছিল। হোয়াইট হাউসে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যখন ওই ঘোষণায় স্বাক্ষর করছিলেন - তখন সেখানে উপস্থিত ছিলেন ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বিনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

মার্কিন পররাষ্ট্রনীতিতে এটা এক বিরাট পরিবর্তন। কারণ এর আগে দশকের পর দশক ধরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং বিশ্বে অন্য বহু দেশ ইসরায়েল এই গোলান দখলদারিকে প্রত্যাখ্যান করেছিল।

মি. ট্রাম্প এসে সেটিকে উল্টে দিলেন। ট্রাম্প প্রশাসন মনে করে, ইসরায়েলকে আক্রমণ করার জন্য ইরান ঘাঁটি হিসেবে সিরিয়াকে ব্যবহার করছে, এবং গোলান হচ্ছে সেই প্রয়াসের 'ফ্রন্ট লাইন'।

বিবিসি বাংলায় আরো খবর:

গোলান মালভূমি আর কখনো ফেরত দেবে না ইসরায়েল

যুক্তরাষ্ট্র থেকে রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠিয়েছে ফিলিস্তিন

আরব-ইসরায়েল সংঘাত শুরু যে ৬৭ শব্দের অনুচ্ছেদে

Image caption মানচিত্রে গোলান

আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ীও এটা এক গুরুতর প্রশ্ন তুলেছে। কারণ এ স্বীকৃতির মাধ্যমে মি. ট্রাম্প কার্যত গোলানে ইসরায়েলের দখলদারিকেই অনুমোদন দিয়ে দিলেন।

বিশ্লেষকরা বলছেন, তাহলে এখন রাশিয়ার ক্রাইমিয়া দখলকে মি. ট্রাম্প কোন যুক্তিতে সমালাচনা করবেন?

আরো উদ্বেগের বিষয় হলো, ফিলিস্তিন-ইসরায়েল শান্তি প্রক্রিয়ার সমর্থকরা আশংকা করছেন যে গোলানের ওপর ইসরায়েলের সার্বভৌমত্বের স্বীকৃতি এখন পশ্চিম তীরকেও ইসরায়েলের অংশে পরিণত করার পথ সুগম করতে পারে।

গোলান মালভুমি কেন এত গুরুত্বপূর্ণ?

দক্ষিণ পশ্চিম সিরিয়ার একটি পাথুরে মালভূমি হচ্ছে এই গোলান। জায়গাটা বেশি বড় নয়, কিন্তু এর কৌশলগত গুরুত্ব অপরিসীম।

গোলান মালভুমি থেকে মাত্র ৪০ মাইল দূরে সিরিয়ার রাজধানী দামেস্ক শহর, এবং দক্ষিণ সিরিয়ার একটি বড় অংশ স্পষ্ট দেখা যায়।

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption ১৯৬৭ সালের যুদ্ধে গোলান মালভূমি দখল করে নেয় ইসরায়েল

সিরিয়ান সেনাবাহিনীর গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করার জন্য এটা এক আদর্শ জায়গা।

তা ছাড়া পার্বত্য এলাকা বলে সিরিয়ার সেনাবাহিনীর কোন সম্ভাব্য আক্রমণের পথে এটা একটা চমৎকার প্রাকৃতিক বাধা হিসেবে কাজ করে।

তা ছাড়া এটি প্রাকৃতিক পানির উৎস। গোলান মালভূমি থেকে পানি গড়িয়ে পড়ে জর্ডন নদীতে। এর এটি হচ্ছে ইসরায়েলের পানি সরবরাহের এক তৃতীয়াংশের উৎস। তা ছাড়া জায়গাটি উর্বর এবং এখানে ফল ও আঙুরের চাষ হয়, পশুপালন হয়।

১৯৬৭ সালে ইসরায়েল জায়গাটি দখল করার পর এখানকার সিরিয়ান আরব বাসিন্দারা অধিকাংশই পালিয়ে যায়। ১৯৭৩ সালের যুদ্ধে সিরিয়া এটি পুনর্দখল করার চেষ্টা করেও পারে নি। ১৯৭৪ সালে ইসরায়েল সিরিয়া এক যুদ্ধবিরতি হয়, আর ১৯৮১ সালে ইসরায়েল গোলানকে নিজের অংশ করে নেয় একতরফা ভাবে। তবে এটা কোন আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পায় নি।

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption গোলানে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী

এখানে ৩০টিরও বেশি ইসরায়েলি বসতি আছে, যাতে ২০ হাজার ইসরায়েলি বাস করে। এ ছাড়াও এখানে বাস করে প্রায় ২০ হাজার সিরিয়ান দ্রুজ সম্প্রদায়ের লোক।

একই সময় ইসরায়েলি সেনাবাহিনী ঘোষণা করেছে যে গাজা থেকে রকেট নিক্ষেপের ঘটনার পর গাজা নিয়ন্ত্রণকারী হামাসের স্থাপনাগুলোর বিরুদ্ধে সামরিক অভিযান শুরু হয়েছে।

এর আগে গাজা থেকে ছোঁড়া একটি ফিলিস্তিনি রকেট তেল আবিবের উত্তরে একটি বাড়িতে আঘাত হানার পর ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বিনিয়ামিন নেতানিয়াহু দেশে ফিরে আসার জন্য তার যুক্তরাষ্ট্র সফর সংক্ষিপ্ত করেন। মি. নেতানিয়াহু বলেন, ইসরায়েল এর শক্ত জবাব দেবে।

ইসরায়েলে দু'সপ্তাহের মধ্যে নির্বাচন হওয়ার কথা এবং এর মধ্যে বিরোধীদলগুলো অভিযোগ করেছিল যে নিরাপত্তা হুমকি মোকাবেলায় মি. নেতানিয়াহু দুর্বলতা দেখাচ্ছেন।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন :

বড় সমস্যা হয়ে উঠছে 'এন্টিবায়োটিকে কাজ না হওয়া'

চীন আর আমেরিকার মধ্যে কি যুদ্ধ বেধে যাবে?

কেন আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পায়নি ২৫শে মার্চ গণহত্যা দিবস?