বনানিতে ভবন অভিযান: কিছু ঘটলেই কেবল টনক নড়ে প্রশাসনের?
আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

বনানীতে ঝুঁকিপূর্ণ ভবন শনাক্তে অভিযান: কিছু ঘটলেই কেবল টনক নড়ে প্রশাসনের?

বনানীর বেশ কয়েকটি ভবন অনুমোদনহীন ও নকশা বহির্ভূত কিনা তা খতিয়ে দেখার সময় বেশ কয়েকটি অনিয়ম উঠে আসে রাজউকের অভিযানে। কোথাও অনুমোদনের চাইতে অতিরিক্ত ফ্লোর নির্মাণ করা হয়েছে, কেউবা খুলে বসেছে রেস্তোরা। আবার কোথাও ছাঁদে ওঠার সিঁড়ি পর্যন্ত দেখা যায়নি।

মূলত রাজউকের ৮টি জোনে ২৪টি টিম এমন প্রতিটি বিষয় খতিয়ে দেখে ১৫ দিনের মধ্যে একটি পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দেবে ।

এছাড়া আলাদাভাবে পরিদর্শন করে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের একটি দলও। তারা মূলত অগ্নি নিরাপত্তায় একটি বহুতল ভবনে যে ব্যবস্থাগুলো থাকা দরকার বিশেষ করে ভবনের অ্যালার্ম ব্যবস্থা, স্মোক ডিটেক্টর, আগুন নেভানোর যন্ত্র, জরুরি নির্গমন সিঁড়ি সেগুলো যথাযথ অবস্থায় আছে কিনা তা খতিয়ে দেখবে।

কিন্তু শুধু বড় কোন দুর্ঘটনা হওয়ার পরপরই ঢাকাজুড়ে এই সংস্থাগুলোকে সক্রিয় হয়ে উঠে কেন? তাদের এমন পরিদর্শন, প্রতিশ্রুতি বা আশ্বাস ঢাকার অগ্নি দুর্ঘটনা ঠেকাতে কতোটা ভূমিকা রাখবে সেটা জানতে গিয়েছিলেন বিবিসি সংবাদদাতা সানজানা চৌধুরী।

আরো পড়ুন: ঢাকায় অবৈধ ভবন শনাক্তের পর কী করবে সরকার?

'নিঃশ্বাস নিতে না পেরেই মানুষগুলো ঝাঁপ দিয়েছিল'