বিশ্বকাপ ক্রিকেটে বাংলাদেশ দল: ইমরুল কায়েস আরও একবার 'দুর্ভাগা'?

ছবির কপিরাইট HAGEN HOPKINS
Image caption ইমরুল কায়েস

ক্রিকেট বিশ্বকাপের জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড মঙ্গলবার যে দল ঘোষণা করেছে, তাতে নেই ইমরুল কায়েস।

এর আগে নিউজিল্যান্ড সফরেও বাদ পড়েছিলেন তিনি, তবে পরে সুযোগ পেয়ে তিনি নিউজিল্যান্ডে গিয়ে হয়েছিলেন বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক।

মূলত ২০১৮ সালে জিম্বাবুয়ে সফরে ইমরুল কায়েসের পারফরম্যান্সের পর থেকে তিনি আলোচনার কেন্দ্রে ছিলেন।

কিন্তু তারপরেও তাকে কেনো দলে নেয়া হচ্ছে না এ নিয়ে বারবার প্রশ্ন উঠেছে। বিশ্বকাপের দল ঘোষণার পর আরও একবার ওই প্রশ্ন উঠেছে, সমর্থকরা জানতে চাইছেন যে ইমরুল কায়েস আবারও কেন বাদ পড়লেন।

আরো পড়ুন:

ইমরুল কায়েসের আক্ষেপ ও নিবার্চকদের ব্যাখ্যা

ক্রিকেট বিশ্বকাপের বাংলাদেশ দলে যারা রয়েছেন

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচক হাবিবুল বাশার বিবিসি বাংলার কাছে ইমরুল কায়েসের না থাকার একটি ব্যাখ্যাও দিয়েছেন।

তিনি বলেন, "ইমরুল কায়েস নিঃসন্দেহে দুর্ভাগা, কিন্তু এখানে আমরা সেরাদেরই নিয়েছি। এই যেমন লিটন দাস বা সৌম্য সরকার - উভয়েই দ্রুত রান তুলতে পারেন।"

"বিশ্বকাপের মতো জায়গায় দ্রুত রান তোলাটা গুরুত্বপূর্ণ। এখানে আসলে আমাদের লক্ষ্য মেরে খেলে এমন ক্রিকেটার নেয়া।"

মিনহাজুল আবেদীন নান্নু, যিনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাচক, তিনি মূলত বাম হাত ও ডান হাতের মিশ্রণের দিকে বেশি গুরুত্ব দেন।

যেহেতু তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার বাঁহাতি, তাই ইমরুল কায়েস এখানে জায়গা পাননি।

এর আগে ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে এনামুল হক বিজয়ের বদলি হিসেবে বিশ্বকাপ খেলেছিলেন কায়েস। ২০১৮ এশিয়া কাপেও বাংলাদেশের দলে পরিবর্তন এনে ইমরুল কায়েসকে দলে নেয়া হয়েছিলো।

২০১৮ সালে ইমরুল কায়েসের পারফরম্যান্স কেমন ছিল?

২০১৮ সালে বাংলাদেশের সেরা পাঁচ ব্যাটসম্যানের মধ্যে চার নম্বরে আছেন ইমরুল।

খেলেছেন ৮টি ওয়ানডে ম্যাচ।

তবে সেরা পাঁচের মধ্যে সর্বোচ্চ স্ট্রাইক রেট তার।

বাকিদের অবস্থা কেমন?

নাম ইনিংস রান গড় স্ট্রাইক রেট
মুশফিকুর রহিম ১৯ ৭৭০ ৫৫ ৮২.৩৫
তামিম ইকবাল ১২ ৬৮৪ ৮৫.৫০ ৭৬.৩৩
সাকিব আল হাসান ১৩ ৪৯৭ ৩৮.২৩ ৮৩.৯৫
ইমরুল কায়েস ৪৩৬ ৬২.২৮ ৯০.৪৫
মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ১৬ ৪১৯ ৩২.২৩ ৭৫.৩৫

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ২০১৭ সালের সিরিজের পরিসংখ্যান

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ২০১৭ সালে ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন ইমরুল কায়েস।

সেই সিরিজে ইমরুল কায়েস ৩ ম্যাচ খেলে করেন ১১৯ রান, যেখানে তামিম ইকবাল ৩ ম্যাচ ব্যাট করে তুলেছিলেন ১১৫ রান।

সাকিব আল হাসান ছিলেন তৃতীয়, ৩ ম্যাচে তার সংগ্রহ ছিল ৮৪ রান।

বিবিসি বাংলার অন্যান্য খবর:

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে আসছে না খালেদা জিয়ার

ভাঙ্গার জন্য খালি করা হচ্ছে বিজিএমইএ ভবন

চাঁদ দেখা: বিজ্ঞানকে কেন কাজে লাগাচ্ছে না মুসলিমরা

দুইশো বছরে তৈরি আর আগুনে ছারখার কয়েক ঘণ্টায়

সম্পর্কিত বিষয়